গরমে নারীর শরীর পরিচ্ছন্ন রাখার দশটি টিপস

গরমে নারীর শরীর পরিচ্ছন্ন রাখার দশটি টিপস
Share Button

সবাই রোজ গোসল করেন কিন্তু গায়ে সাবান বুলিয়ে জল দিয়ে ধুয়ে ফেললেই তো আর শরীর পরিচ্ছন্ন থাকে না। বিশেষ করে গরমকালে গোপনাঙ্গে ঘাম জমে শরীর নোংরা হয় বেশি। এই সময়ে মেয়েদের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত শরীরের প্রতি। শরীর যত পরিচ্ছন্ন থাকবে, ততই ব্যাকটেরিয়াজনিত রোগব্যাধি থেকে দূরে থাকা যাবে।

এই গরমে মহিলারা কীভাবে নিজেদের পরিচ্ছন্ন রাখবেন সে ব্যাপারে রইল ১০টি টিপস—

১) দু’বেলা গোসল করা জরুরি এবং গোটা শরীরই সাবান অথবা বডিওয়াশ দিয়ে ভাল করে ধুতে হবে।

২) গরমে ঘাম বসে মাথার চুলে। অনেকে রোজ চুল ভিজিয়ে চান করেন না। তাঁরা একদিন ছাড়া শ্যাম্পু অবশ্যই করবেন। এর জন্য দামি হার্বাল শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। চুলের ক্ষতি হবে না।

৩) যৌনকেশের গোড়ায় ঘাম বসে খুব বেশি। ঠিক তেমনই আন্ডারআর্মসে চুল থাকলেও সেখানে অতিরিক্ত ঘামের ফলে র‌্যাশ হতে পারে। তাই গরমকালে আন্ডারআর্মস কেশমুক্ত রাখুন। ওয়াক্সিং করবেন, শেভিং নয়।

৪) যৌনকেশ অবশ্যই ট্রিম করবেন যতটা পারা যায়। ভালভার উপরের অংশের যৌনকেশ সম্পূর্ণ নির্মূল করতে পারেন রিমুভার ব্যবহার করে কিন্তু ভালভা বা তার নীচের যৌনকেশ তুলতে কখনওই রিমুভার ব্যবহার করবেন না। লেডি শেভারও না ব্যবহার করাই। ক্ষত হয়ে যেতে পারে।

৫) সপ্তাহে একদিন অবশ্যই স্ক্রাবিং করবেন সারা গায়ে। বিশেষ করে আন্ডারআর্মস, কনুই, হাতের ভাঁজ, হাঁটুর ভাঁজ, ঘাড়, কানের পিছন, নিতম্ব, যোনি ও উরুর সংযোগস্থলে ইত্যাদি অংশে ময়লা জমে সবচেয়ে বেশি। ওই সব অংশে হাতে স্ক্রাবার দিয়ে অন্তত ৫ মিনিট হালকা হাতে মাসাজ করুন। তার পরে ধুয়ে ফেলুন।

৬) সারাদিন ব্রা পরে থাকলে স্তনের ঠিক নীচে গরমে র‌্যাশ হতে পারে, ময়লাও জমতে পারে। তাই প্রতিদিন অল্প একটু স্ক্রাবার নিয়ে স্তনের নীচে রাব করুন গোসলের সময়। অথবা স্ক্রাবিং বডিওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন।

৭) গরমের সময়ে শুধু নয়, সারা বছরই যোনি ধোওয়ার সময়ে ভালভাটি ফাঁক করে আঙুল দিয়ে তার ভিতরের অংশটি পরিষ্কার করা উচিত। সরাসরি এই অংশে সাবান দেবেন না। হার্বাল বডিওয়াশ হলে হাতে নিয়ে ফেনা করে তবেই যোনির ভিতরের অংশে ব্যবহার করুন।

৮) দিনে দু’বার অন্তর্বাস এবং পোশাক পালটানো খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রত্যেকবার জামাকাপড় ছাড়ার আগে অবশ্যই ভাল করে গোসল করবেন।

৯) গরমে ঘাম বসে নিতম্বের ভাঁজের ভিতরে। তাই গোসল করার সময়ে ওই অংশটিও ভাল করে পরিষ্কার করা প্রয়োজন। খুব বেশি রাব করবেন না। পায়ুছিদ্রের আশপাশের ত্বক খুব নরম হয়। আলতো করে স্ক্রাবার দিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন।

১০) যোনি ও পায়ুছিদ্রের মধ্যবর্তী অংশটি হল পেরিনিয়াম। এই অংশটি পরিষ্কার করতে বেশিরভাগ মেয়েই ভুলে যান। গরমে তো বটেই, সারা বছরই এই অংশটি পরিষ্কার রাখুন। অ্যানাসের ব্যাকটেরিয়া এই অংশে অনেক সময়েই থাকে। এইখান থেকেই ব্যাকটেরিয়া যোনিতে ছড়াতে পারে। তাই প্রতিদিন দু’বেলা পেরিনিয়ামটিও পরিষ্কার রাখুন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts