রিমঝিম আহমেদ-এর দুটি কবিতা

রিমঝিম আহমেদ-এর দুটি কবিতা
Share Button

বলছি যা বলছি না

বলছি না- থেকে যাও
বলছি না- ছুঁয়ে দাও

বলছি না, বলার ছিল অনেক- আছে অগুনতি
বলছি- আকাশটা বড় ঝকঝকে, মাছরাঙার ডানায় আজ ভোরের রোদ-

বলছি, একদিন আমাদের উঠোনে দাঁতরাঙা ফুটেছিল, শিমুলের কেশর দিয়ে খেলেছি দাঁড়িকামানো খেলা

বলছি না, জল দাও
কররেখা গুনে বলে দাও আয়ুর হিশেব।

বলছি, একদিন সময় করে পড়ে নিও চোখে জমানো গল্প;
জেনো, একদিন চোখ পাথর হয়ে যাবে।

বলছি-একটা অন্ধকার ঘর, মোম জ্বলছে
মোমজ্বলা দেখতে আমার ভালো লাগে।





নদী উপাখ্যান

একদিন আমার মাথার ভেতর বয়ে যাবে একটা শান্ত নদী, নদীটার নাম কী হতে পারে এই নিয়ে ভাবছি রাতদিন, ভেবে ভেবে অবশেষে নদীটির নাম রাখি ‘দরদিয়া’ খুব শীতল কাকচক্ষু জল নিয়ে ধীর লয়ে হেঁটে যাবে নদীটি, তার উপর দিয়ে উড়ে যাবে সুখী সারস, যুগল মাছেদের পাখনা ঘষতে দেখে একটু লজ্জায় থির দাঁড়িয়ে ফের ছুট দেবে শ্যাওড়ারঙ ফড়িঙ। জলের আয়নায় প্রতিবিম্ব ফেলে দূর থেকে গন্তব্যে ফেরা উড়োজাহাজ কিছু শব্দ রেখে যাবে, যে কিশোর একবার ডুব দিয়েছে তার চোখে কিছু বিস্ময় আঁকা হয়ে যাবে শৈশবের, একদিন সে কলের পাখায় জমিয়ে রাখা খুচরো বিস্ময় নিয়ে খেলবে কানামাছি—দরদে মাখামাখি এসব স্মৃতিঘ্রাণ রাতকুসুমের মতো ভেসে বেড়াবে বেলাজ হাওয়ায়।

আমার মাথার ভিতর বয়ে যাচ্ছে একটি নদী, শীতল, অতল—
কার যেন ক্লেদাক্ত শরীর
শরীর ধুয়ে নেয়া আদেহ পাপ।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment