আন্তর্জাতিক চাপের মুখে বাংলাদেশ

flags
Share Button

মার্কিন দূতাবাসের সাবেক কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নানসহ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও ব্লগার হত্যার ঘটনায় আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়েছে বাংলাদেশ সরকার। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার মতে নৃশংস হত্যাকাণ্ড দমনে বাংলাদেশ ব্যর্থ হয়েছে।

‘বিচারহীনতার সংস্কৃতি’ এ ধরনের সহিংসতা আরও বাড়াবে বলে আশংকা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। বিশ্ব সম্প্রদায় খুনের সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার দাবিতে সোচ্চার হয়ে উঠেছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ডেনমার্ক, জাতিসংঘ, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, হিউম্যান রাইট্স ওয়াচ ,সিপিজেসহ বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার পক্ষ থেকে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ অব্যাহত রয়েছে।

এ পরিস্থিতির উন্নয়নে বাংলাদেশে সন্ত্রাসের শেকড় চিহ্নিত করার আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন সিনেটর বেন কার্ডিন। জুলহাজ ও তার বন্ধু হত্যার পর ডেমোক্রেট দলের শীর্ষস্থানীয় সিনেটর বাংলাদেশ সরকারের প্রতি এ আহ্বান জানান। জুলহাজ মান্নান হত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।
মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মার্কিন দূতাবাসের সাবেক কর্মী জুলহাজ মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং মানবাধিকার ও মর্যাদার পক্ষে কাজ করেছেন। আমরা তার হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানাই। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিচারে সরকারের কাছে জোরালো দাবি করা হয়েছে বিবৃতিতে। হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় আনার দাবি করেছেন যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র ও কমনওয়েলথবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হুগো সোয়্যার।

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ডেনমার্ক। ঢাকায় ডেনমার্কের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স জ্যাকব হগার্ড মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশে সম্প্রতি বিভিন্ন ব্যক্তি ও ক্ষুদ্র গোষ্ঠীর ওপর নৃশংস হামলার ঘটনায় আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। এসব পাশবিকতার তীব্র নিন্দা জানাই আমরা।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচও জুলহাজ হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছে। সংস্থাটি বলেছে, নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঠেকাতে বাংলাদেশ সরকার ব্যর্থ।

সরকারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সারা বিশ্বেই এ ধরনের সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটছে। যারা এসব কথা বলছেন তাদের দেশেই বেশি ঘটছে। আজও (মঙ্গলবার) লসঅ্যাঞ্জেলসে রাব্বি ও মিসেস রাব্বিকে বাসায় ঢুকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের এখানে এ ধরনের ঘটনা কম হচ্ছে। সে তুলনায় আমরা অনেক ভালো আছি। আমাদের ওপর তারা চাপ দেবেন কেন। এ ধরনের কিছু ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। তাদের বিচার চলছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts