ইউএনডিপির শুভেচ্ছাদূতের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পেলেন মাশরাফি

ইউএনডিপির শুভেচ্ছাদূতের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পেলেন মাশরাফি
Share Button

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে অঙ্গ সংস্থা ইউএনডিপির শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। যদিও মাশরাফির জাতিসংঘের ইউএনডিপির শুভেচ্ছাদূত হওয়ার খবরটি কয়েকদিন আগের।

তবে এ সম্পর্কিত আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এলো আজ। ঢাকার স্থানীয় এক হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে মাশরাফিকে শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নিয়োগের বিষয়টি জানিয়েছে ইউএনডিপি। সংস্থার হয়ে বাংলাদেশের তরুণদের জন্য কাজ করবেন মাশরাফি।

এ ছাড়া ক্রিকেটার হিসেবে মাশরাফি চতুর্থ। এর আগে শচীন টেন্ডুলকার, শহীদ আফ্রিদি ও মুত্তিয়া মুরালিধরন জাতীয় পর্যায়ে ইউএনডিপির দূত ছিলেন।

তরুণদের সঙ্গে কাজ করার এমন সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশের সীমিত পরিসরের অধিনায়ক মাশরাফি।

ইউএনডিপিকে ধন্যবাদ জানিয়ে মাশরাফি বলেন, “তরুণদের নিয়ে কাজ করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য ইউএনডিপিকে ধন্যবাদ। আমার সব সময় স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশের তরুণদের নিয়ে কাজ করার। সে হিসেবে এটা আমার জন্য খুব ভালো একটা সুযোগ। আমার মনে হয়, খেলাধুলার পাশাপাশি আমি কাজটি ভালোমত করতে পারব। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সহায়তায় কিংবা নিজের উদ্যোগেও আমি তরুণদের জন্য কিছু করতে চাই। এ জন্য প্রস্তাবটা আসার পরই দ্রুতই তা গ্রহণ করেছি।”

ইউএনডিপি, আবাসিক সমন্বয়ক রবার্ট ওয়াটকিনস তার বক্তব্যে বলেন, “আমি বিশ্বাস করি, আমাদের কার্যক্রমে যুক্ত করার জন্য সবচেয়ে আদর্শ ব্যক্তিকেই আমরা বেছে নিয়েছি। মাশরাফি মাঠ ও মাঠের বাইরে দুর্দান্ত পারফর্মার। আমরা বিশ্বাস করি তার ইতিবাচক ভাবমূর্তি তরুণদের অনুপ্রাণিত করতে দারুণভাবে কাজে দিবে।”

download (2)

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৪৪ শতাংশই তরুণ। এদের মধ্যে ৭০শতাংশেরই কর্মসংস্থান নেই। মাশরাফির বিশ্বাস তরুণদের হাত ধরেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। কর্মসংস্থানের সমস্যা দূর হবে এবং সঠিক পথেই থাকবে দেশের প্রতিভাবান তরুণরা।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment