নিজামীর ‘শেষ ইচ্ছা’ পূরণ হলো না

nizami
Share Button

বাবা-মায়ের কবরের পাশে শায়িত হবেন, এই ছিল একাত্তরের মানবতাবিরোধী জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীর ইচ্ছা। কিন্তু তার জীবনের শেষ এই ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে না। মনমথপুর কবরস্থানেই সমাহিত করার অনুমতি দেয়া হলেও বাবা-মায়ের কবরের পাশে শায়িত করা হবে না।

মঙ্গলবার (১০ মে) সন্ধ্যার পর মতিউর রহমান নিজামীর ভাতিজা আব্দুর রহিম খানের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা যায়।

তিনি বলেন, ‘চাচা (নিজামী) এখানে এসে বলেছিলেন, মনমথপুর কবরস্থানে বাবা-মায়ের পাশে শায়িত হতে চান। কিন্তু সেই স্থানে কবরের জায়গা না দিয়ে কিছুটা দূরে তার মামার কবরের পাশে তাকে শায়িত করার অনুমতি দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী জায়গাটি পরিষ্কারও করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা কবরস্থানসহ সম্ভাব্য সব জায়গাগুলোই দেখেছি। নিজামীর বাবা-মায়ের কবরের পাশের জায়গাটি জঙ্গলাকীর্ণ। এটি একদিনে পরিষ্কার করা সম্ভব না। তাই সেখানে দাফনের চিন্তা বাদ দিতে হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। মরদেহ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা দাফনের সকল কার্যক্রম শুরু করবো।’

এদিকে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর সঙ্গে ‘শেষবারের মতো’ দেখা করতে কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে তিনটি গাড়িতে করে শিশুসহ পরিবারের ২০ সদস্য কারাগারের মূল ফটকে এসে পৌঁছায়।

সদস্যদের মধ্যে আছেন স্ত্রী শামসুন্নাহার নিজামী, দুই ছেলে ড. খালিদ ও ব্যারিস্টার নাজিব মোমিন, মেয়ে খাদিজা মহসীনা, বড় ছেলের স্ত্রী, দুই নাতি, নিজামীর চাচাতো ভাই, ভাইয়ের মেয়ে।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে কারা কর্তৃপক্ষ নিজামীর পরিবারের সদস্যদের দেখা করতে ফোন দেয়। অবশ্য নিজামীর সঙ্গে দেখা করার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছিল। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পরিবারকে ডাকা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তাদের আইনজীবী গাজী এমএইচ তামিম।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts