বায়োমেট্রিকে সিম নিবন্ধনের সময় বাড়ছে!

অনিবন্ধিত সিম ৩০ এপ্রিলের পর বন্ধ হবে
Share Button

বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে পুনঃনিবন্ধনের সময় বাড়ানোর বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন ডাক ও টেলি যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

নিবন্ধনের জন্য বেঁধে দেওয়া ৩০ এপ্রিলের পর কয়েক ঘণ্টা সিম বন্ধের সিদ্ধান্তে অটল থাকার সিদ্ধান্ত জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এর পরে এই নিবন্ধন কীভাবে হবে সে বিষয়ে শনিবার জানানো হবে।

সিম নিবন্ধনের সময়সীমা বাড়ানোর বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, ‘সিম নিবন্ধনের সময়সীমা বাড়াতে অপারেটরদের আবেদনের চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ হলো জনগণ কী চায়। জনগণ যদি মনে করে আরও সময়ের প্রয়োজন, তাহলে সরকার সেটি অবশ্যই বিবেচনা করে দেখবে।’

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে তিনি বলেন, ৩০ এপ্রিল আপনাদের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি জানাব।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ৭ কোটি ৩৩ লাখ সিম সফলভাবে নিবন্ধিত হয়েছে। আর এ সময়ে আঙুলের ছাপ ও তথ্য না মেলায় এক কোটির বেশি সিমের নিবন্ধন সফল হয়নি। বর্তমানে দেশে চালু থাকা মোট সিমের সংখ্যা ১৩ কোটি ৮ লাখ। সে হিসেবে মোট সিমের ৫৬ শতাংশ সফলভাবে নিবন্ধিত হয়েছে।

তারানা হালিম বলেন, “প্রথম দিন থেকে বলে আসছি পহেলা মে থেকে কয়েক ঘণ্টার জন্য সিমগুলো বন্ধ থাকবে। যারা করেনি, তারা যেন দ্রুত রি-ভেরিফিকেশন করে নেয়।”

মোবাইল অপারেটরগুলোর সব কাস্টমার কেয়ার সেন্টার ও রিটেইলার পয়েন্টে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম-রিম নিবন্ধন কার্যক্রম ৩০ এপ্রিল রাত ১০টা পর্যন্ত চলবে বলে জানান তিনি।
|
“১ মে থেকে অধিকাংশ অনিবন্ধিত সিম তিন ঘণ্টা বন্ধ রাখছি এই বার্তাটি পৌঁছে দেওয়ার জন্য যে তাদের দ্রুত গিয়ে রি-ভেরিফিকেশন করে নেওয়া প্রয়োজন।”

বুধবার দেশের ছয়টি মোবাইল অপারেটরের সাত কোটি ৭৯ লাখ সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন ও পুনঃনিবন্ধন হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts