মুক্তচিন্তার নামে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত সহ্য করা হবে না : প্রধানমন্ত্রী

মুক্তচিন্তার নামে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত সহ্য করা হবে না : প্রধানমন্ত্রী
Share Button

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতিগত সংস্কৃতি ও ধর্মীয় উৎসব পালন করতে বাধা নেই। তবে মুক্তচিন্তার নামে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হলে তা সহ্য করা হবে না।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসবভবন গণভবনে নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময়কালে এ কথা বলেন।

এ সময় শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদসহ মন্ত্রিপরিষদের সদস্যবৃন্দ, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ সেলিম, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ও সতিশ চন্দ্র রায়সহ দলীয় ও বিশিষ্ট নাগরিকরা উপস্থিত ছিলেন।

দেশবাসীকে নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বছরটা সুন্দরভাবে শুরু হয়েছে, এটা যেন অব্যাহত থাকে। তিনি বলেন, সব জাতি ধর্মের মানুষকে নিয়ে বর্ষবরণের যে উৎসব, তা সার্বজনীন রূপ পেয়েছে বাংলাদেশে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা মুসলমান তার পাশাপাশি বাঙালি জাতি। বাঙালি হিসেবেই আমরা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। সে কথা ভুললেও চলবে না। আর পহেলা বৈশাখ বাঙালি সংস্কৃতির উৎসব এই উৎসব উদযাপন দেশের সব ধর্ম-বর্ণের মানুষের।

তিনি আরও বলেন, প্রতিটি দেশ বা জাতি তার নিজস্ব জাতিসত্ত্বা ও ভৌগলিক সীমারেখার দিয়ে পরিচিত হবে, তাতে তার ধর্মীয় পরিচয়ের কোনও বাধা থাকে না। আরব, কুয়েতি, ফিলিস্তিনিরাও যেমন মুসলমান আমরা বাঙালিদের একটা বড় অংশও মুসলমান।

ইসলামের নির্দেশনা অনুযায়ী যে যার ধর্ম পালনের স্বাধীনতা পাবে বলে জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ইসলাম অন্য কোনও ধর্মের ওপর আঘাত দেয়ার কথা বলা হয়নি। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) বলেছেন ‘ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করোনা’।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts