শাহবাগে চাকরি প্রত্যাশীদের সড়ক অবরোধ, আটক ২

shahabag
Share Button

পুলিশের নির্দেশ ‘অমান্য’ করে রাজধানীর শাহবাগে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন অব্যাহত রাখায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদককে আটক করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।
তারা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ইমতিয়াজ হোসেন ও শিক্ষার্থী নূর জামান চন্দন।
এদিকে, শুক্রবার বিকালেও শাহবাগে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার দাবিতে আন্দোলনরত বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের ডাকা বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু হয়। বিকাল ৫টার দিকে পুলিশ তাদের সরে যাওয়ার ‘অনুরোধ’ করে। কিন্তু তারা তাদের কর্মসূচি অব্যাহত রাখে।
দাবি আদায়ে অনড় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। আন্দোলনকারীরা এ সময় শাহবাগ মোড় থেকে সরে এসে জাতীয় জাদুঘরের সামনে অবস্থান নেয়।
রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. ইব্রাহীম খান দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘যাত্রীভোগান্তি রোধে তাদের শাহবাগ থেকে অবস্থান তুলে নেওয়ার অনুরোধ করা হয়। কিন্তু না শোনায় জোর করে তাদের তুলে দেওয়া হয়েছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘বারডেম ও বিএসএমএমইউ হাসপাতালের রোগী এবং সাধারণ যাত্রীদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে এর বাইরে আমাদের করণীয় কিছু ছিল না। আমরা শিক্ষার্থীদের অনেক অনুরোধ করেছিলাম। কিন্তু তারা আমাদের কথা শোনেনি।’
আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে ভাওয়াল বদরে আলম কলেজের শিক্ষার্থী এম এ আলীর অভিযোগ করে বলেন, আমরা পুলিশের কাছে ‘দশ মিনিট’ সময় চাই। কিন্তু পুলিশ আমাদের কথায় গুরুত্ব না দিয়ে ‘বেধড়ক লাঠিচার্জ’ করে। এতে আমি হাতে-পায়ে আঘাত পাই।
তার অভিযোগ, ‘পুলিশ আমাকে লাঠি দিয়ে পেটানোর পর বুকের উপর উঠে বুট দিয়ে পিষেছে। আহত অবস্থায় প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে যেতে চাইলে পুলিশ আমাকে বাধা দেয়।’
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান বলে, ‘এই আন্দোলন খুবই যৌক্তিক। অহিংস আন্দোলনে পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনা অন্যায়।’
আন্দোলনরত চাকরি প্রত্যাশীদের অভিযোগ অস্বীকার করে রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. ইব্রাহীম খান বলেছেন, ‘শাহবাগে কী হয়েছে, আপনারা দেখেছেন। আমরা শিক্ষার্থীদের অন্যায়ভাবে পেটাইনি।’
শাহবাগ মোড়ে চাকরি প্রত্যাশীদের আন্দোলন ঘিরে রাজধানীর সকল সড়কে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। সন্ধ্যার দিকে যানজট নিরসনে হিমশিম খেতে দেখা যায় ট্রাফিক পুলিশকে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment