স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিধি ভঙ্গ, স্পিকারের রুলিং

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিধি ভঙ্গ, স্পিকারের রুলিং

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী বিধি ভঙ্গ করায় রুলিং দিয়েছেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

রুলিংয়ে সব মন্ত্রণালয়কে এমপিদের প্রশ্নের উত্তর দেয়ার ক্ষেত্রে যত্নবান হতে বলেছেন তিনি।

সোমবার সংসদ অধিবেশনের শুরুতে এই রুলিং দেন স্পিকার।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদের দেয়া এক বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এ রুলিং দেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে পরপর কয়েকটি অধিবেশনে প্রশ্ন করেও জবাব না পাওয়ায় সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ স্পিকারের রুলিং দাবি করেছিলেন।

স্পিকার রুলিং তুলে দেয়া হলো-
‘মাননীয় সদস্য গত ১৯/১১/২০১৫ তে প্রশ্নটি করেন। সেইদিন ওই প্রশ্নটি পরবর্তী দিনের জন্য স্থানান্তরিত করা হয়। কিন্তু ওই দিন আসার আগেই অধিবেশন শেষ হয়। মাননীয় সদস্য প্রশ্নটি আবার নতুন করে নবম অধিবেশনে করেন। ২ ফেব্রুয়ারি বইয়ে ছিল। ওই দিন প্রশ্নটি আবারো স্থানান্তরিত হয়। ১৬ ফেব্রুয়ারি ওই প্রশ্নটি আবার নির্ধারিত ছিল। ১৬ ফেব্রুয়ারি প্রশ্নটির হয় উত্তর প্রদান আবশ্যক ছিল অথবা মন্ত্রণালয় কর্তৃক তা স্থানান্তিত করার অনুরোধ করার প্রয়োজন ছিল। কিন্তু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক কোনোটি করা হয়নি। উত্তরও প্রদান করা হয়নি, পরবর্তী দিনে স্থানান্তরিত করার অনুরোধও করা হয়নি। উত্তর প্রদান না করা বা পরবর্তী দিনে স্থানান্তিত করার অনুরোধ না করা কার্যপ্রণালী বিধির ব্যত্যয়।’

কার্যপ্রণালী বিধির ৫২ ধারায় বলা আছে, যে কোনো দিনে উত্তরদানের জন্য তালিকাভুক্ত কোনো প্রশ্ন যদি ওই দিনের প্রশ্নের উত্তরদানের জন্য ডাকা না হয়, তাহলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী বা যে সদস্যকে প্রশ্নটি করা হয়েছে, সেই সদস্য কর্তৃক ইতোপূর্বে সরবরাহকৃত উত্তরটি প্রশ্নকালের শেষে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী বা সদস্য কর্তৃক টেবিলে উপস্থাপিত হয়েছে বলে গণ্য হবে এবং অনুরূপ কোনো প্রশ্নের জন্য মৌখিক উত্তরের প্রয়োজন হবে না। কিংবা তৎসম্পর্কের কোনো সম্পূরক প্রশ্ন করা যাবে না: তবে শর্ত থাকে যে, মন্ত্রী যদি ওই প্রশ্নের উত্তর দিতে প্রস্তুত না থাকেন, তাহলে তার অনুরোধক্রমে প্রশ্নটি ওই মন্ত্রণালয়ের জন্য বরাদ্দ পরবর্তী দিনে উত্তরদানের জন্য তালিকাভুক্ত হবে।

‘মাননীয় মন্ত্রীগণ যদি কোনো প্রশ্নের উত্তর তাৎক্ষণিকভাবে দেয়ার তার কাছে তথ্য না থাকে বা উত্তর দিতে প্রস্তুত না থাকে তাহলে কার্যপ্রণালী বিধির ৫২ বিধি অনুযায়ী পরবর্তী দিনে উত্তর প্রদানের জন্য রাখতে পারেন। কাজেই কার্যপ্রণালী বিধির ৫২ বিধি অনুযায়ী সকল মন্ত্রণালয়কে কার্যপ্রণালিবিধি অনুসরণ পূর্বক প্রশ্নোত্তর প্রদানে অধিক যত্নবান ও মনোযোগী হওয়ার নির্দেশ দেয়া যাচ্ছে।’

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment