৮ ঘণ্টা পর থানা ছাড়লেন নাসিক মেয়র আইভী

naryanganj

ঢাকার হাতিরঝিলের আদলে নারায়ণগঞ্জে নির্মাণাধীন বিনোদন পার্ক ও লেকের ঠিকাদার জাকির হোসেনকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় উদ্বিগ্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী।

ঘটনার প্রতিবাদে কয়েকজন কাউন্সিলর, প্যানেল মেয়র ও অনুগামী নেতাকর্মীদের নিয়ে মেয়র আইভি নারায়ণগঞ্জ সদর থানার ভেতরে ও বাইরে ৮ ঘণ্টা অবস্থান নেন। বুধবার রাত সাড়ে ১০টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৬টা পর্যন্ত অবস্থান করে তারা থানা এলাকা ত্যাগ করেন।
৮ ঘণ্টা পর থানা ছাড়লেন মেয়র আইভী
মেয়র আইভী থানা এলাকায় অবস্থানকালে সাংবাদিকদের বলেন, ‘কোনো অপরাধ ছাড়া আমাদের ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে। ঠিকাদার জাকিরকে কাজ আমি দিয়েছি। মামলা করলে আমার বিরুদ্ধে করেন। গ্রেপ্তার করতে হলে আমাকে করেন। একটি বিশেষ মহলের নির্দেশে মামলা হচ্ছে। সিটি করপোরেশনের উন্নয়ন কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি করা হচ্ছে। প্রয়োজন হলে আমি সারারাত থানায় থাকবো। সকালে প্রয়োজনে আমাকেও আদালতে চালান করা হোক। নির্দোষ ব্যাক্তিদের থানায় রেখে বাড়ি যাব না।’

মেয়র আরো বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দেয়া হচ্ছে। এর আগে আমার ভাই উজ্জল, ভাগ্নে, ঠিকাদার সুফিয়ানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। আমার অপরাধ আমি ত্বকী হত্যার বিচার চেয়েছি। সেভেন মার্ডারের বিচার চেয়েছি। নাট্যকার চঞ্চল হত্যার বিচার চেয়েছি। এজন্য বিশেষ মহলটি আমার বিরুদ্ধে লেগেছে।’

নাসিক সূত্রমতে, ঢাকার হাতিরঝিলের আদলে নাসিকের উদ্যোগে শহরের জিমখানায় লেক ও বিনোদন পার্ক নির্মিত হচ্ছে। যার ব্যয় ধরা হয়েছে ৭ কোটি ৭৪ লাখ ৯৮ হাজার টাকা। এর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান হলো মেসার্স রত্না এন্টারপ্রাইজ যার মালিক হলো জাকির হোসেন। ইতোমধ্যে প্রকল্পটির অনেকখানি কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

এদিকে, গত ২৭ জানুয়ারি রেলওয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা লেক ও পার্ক নির্মাণের কাজ বন্ধ করতে গেলে স্থানীয় লোকজন তাদের ধাওয়া করে। ৩০ মার্চ সন্ধ্যায় রেলওয়ের কানুনগো (এটা একটি পদের নাম) ইকবাল মাহমুদ বাদী হয়ে নাসিকের ঠিকাদার আবু সুফিয়ানকে প্রধান করে রত্না এন্টারপ্রাইজের মালিক জাকির হোসেনসহ ৭-৮ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ উল্লেখ করে রেলওয়ের জায়গা লিজ না নিয়ে জোরপূর্বক নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। রাত পৌনে ১০টার দিকে ঠিকাদার জাকিরকে কালিরবাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে সদর মডেল থানা পুলিশ।

কানুনগো ইকবাল মাহমুদ এ ব্যাপারে জানান, রেলওয়ের জায়গা দখল ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার ওই ঘটনায় আমি ৩০ মার্চ বিকেলে বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করি। মামলায় দুই ঠিকাদার সুফিয়ান ও জাকির হোসেনকে আসামি করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মালেক জানান, ৩০ মার্চ সন্ধ্যায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ মামলা দায়ের করেছে। মামলার আসামি ঠিকাদার জাকির হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে, জাকির হোসেনকে গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে সদর মডেল থানায় হাজির হন মেয়র আইভীসহ আওয়ামী লীগ যুবলীগের নেতাকর্মীরা। ওই সময়ে আইভীর সঙ্গে নাসিকের প্যানেল মেয়র মনিরুজ্জামান মনির, জেলা যুবলীগ সভাপতি আবদুল কাদির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ওসি আব্দুল মালেক পিপিএমকে উদ্দেশ্য করে নাসিক মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, ‘আমি থানার ভেতর থেকে এক পাও নড়বো না। কার নির্দেশে এই মামলা হয়েছে সেটা জানতে চাই। কালকে থেকে আর উন্নয়ন কাজ চলবে না। উন্নয়ন কাজ বন্ধ থাকলে প্রয়োজনে পদত্যাগ করবো। এই শহর শামীম ওসমানের শহর। শামীম ওসমানই থাকুক।’ এ সময় তাদের সঙ্গে থানার ঊর্ধ্বতনদের তুমুল বাকবিতণ্ডার ঘটনা ঘটে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment