কখন কিয়ামত অনুষ্ঠিত হবে?

Share Button

কিয়ামতের নিদর্শনগুলো যখন সংঘটিত হতে থাকবে; তখন তা একটার পর একটা ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ হতে থাকবে। কিয়ামতের সর্ব প্রথম যে বড় আলামতটি প্রকাশ পাবে, তা হলো আগুন নির্গমন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কিয়ামতের নিদর্শনগুলো প্রকাশের ব্যাপারে হাদিসে একটি চমৎকার উদাহরণ পেশ করেছেন-

তিনি ঘটনাটি এভাবে বর্ণনা করছেন যে, ‘পুঁতির মালার বাঁধন খুলে গেলে যেমন দানাগুলো পর্যায়ক্রমে একটির পর অপরটি বেরিয়ে আসতেই থাকে; তেমনি (কিয়ামতের) নিদর্শনগুলোর প্রকাশ পরস্পর ধারাবাহিকভাবে ঘটতেই থাকবে।’ (ইবনে হাব্বান, সহিহ জামে)

তারপরও রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতকে কিয়ামত অনুষ্ঠিত না হওয়া সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন। হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত পৃথিবীতে আল্লাহ আল্লাহ শব্দ বলা হবে; ততক্ষণ পর্যন্ত কিয়ামত অনুষ্ঠিত হবে না।’ (মুসলিম)

অন্য হাদিসে বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কিয়ামত অনুষ্ঠিত না হওয়ার বিষয়ে একটি তথ্য তুলে ধরেছেন। হজরত হুজাইফা ইবনে ইয়ামান রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, ততক্ষণ পর্যন্ত কিয়ামত অনুষ্ঠিত হবে না; যতক্ষণ পর্যন্ত দুনিয়াতে সবচেয়ে নিকৃষ্ট ব্যক্তি সবার চেয়ে সুখী মানুষে পরিণত না হবে।’ (তিরমিজি)

পরিশেষে…
বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কিয়ামতের অনেক নিদর্শন পেশ করেছেন। যা ধারাবাহিকভাবে তুলে ধরা হয়েছে। এ সব আলামত প্রকাশ হওয়ার আগেই আল্লাহ তাআলার প্রতি পরিপূর্ণ বিশ্বাস এবং নেক আমল করা ঈমানদারের একান্ত কর্তব্য।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কুরআনের বিধান অনুযায়ী জীবন পরিচালন করে কিয়ামতের ময়দানে আল্লাহর রহমত লাভ করে পরকালের চিরস্থায়ী জীবনের সফলতা অর্জন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts