নামাজ কাজা হলে আদায় করার নিয়ম

সালাত আদায়ের নিয়ম
Share Button

প্রশ্ন : অনেক নামাজ কাজা হলে এগুলো আদায়ের পদ্ধতি কী?

উত্তর : মেয়েদের ১২ বছর এবং ছেলেদের ১৪ বছর হওয়ার পর থেকে নামাজ ছুটে গিয়ে থাকলে, ছুটে যাওয়া নামাজের আনুমানিক একটা হিসাব লাগাতে হবে। হিসাব অনুপাতে ছুটে যাওয়া নামাজের কাজা করতে হবে। যত দ্রুত এবং যত বেশি সম্ভব এই কাজাগুলো আদায় করতে হবে। প্রতি ওয়াক্তে কয়েক ওয়াক্তের কাজা আদায় করলেও ভালো। এ ছাড়া সুবিধামতো সময়ে যখন যে নামাজের কাজা আদায়ের সুযোগ হয় আদায় করা যাবে। তবে প্রতি ওয়াক্তে ওই ওয়াক্তের কাজা আদায় করলে হিসাব রাখা সহজ। এভাবে আদায়কৃত নামাজ আনুমানিক হিসাব থেকে কমতে থাকবে। এ নিয়মে ছুটে যাওয়া নামাজ আদায় হয়ে গেলে ভালো। নতুবা জীবনের শেষ মুহূর্তে অবশিষ্ট নামাজের ফিদয়া দেয়ার ওসিয়ত করতে হবে।

ছুটে যাওয়া নামাজ আদায়ের নিয়তের ব্যাপারে সাধারণত কোনো দিনকে নির্দিষ্ট করা কঠিন, তাই নিয়ত নির্দিষ্ট করার সহজ উপায় এরকম বলা- আমার ছুটে যাওয়া ফজরের নামাজগুলোর সর্বশেষ দিনের ফজরের নামাজ আদায়ের নিয়ত করছি। পরের দিনের ব্যাপারেও একই রকম বলতে হবে- আমার ছুটে যাওয়া ফজরের নামাজগুলোর সর্বশেষ দিনের ফজরের নামাজ আদায়ের নিয়ত করছি। সর্বশেষ বলতে বলতে এক সময় আর বাকি থাকবে না। এ নিয়মে জোহর, আসর, মাগরিব, এশা, বেতর সবই আদায় করা যাবে।

তবে সুন্নাত নামাজের কাজা করা যায় না, কেবল ফরজ ও বেতরের নামাজের কাজা করার সুযোগ থাকে।

[আদ্দুররুল মুখতার, সাঈদ, খণ্ড : ২, পৃষ্ঠা : ৬৮; ফাতাওয়া দারুল উলুম, জাকারিয়া, খণ্ড : ৪, পৃষ্ঠা : ৩৩২]

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts