কুমিল্লাকে হারিয়ে ফাইনালে মাশরাফির রংপুর

মাশরাফির রংপুর
Share Button

নানা ঘটনা আর নাটকীয়তার ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৩৬ রানে হারিয়ে দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনাল খেলার টিকিট পেল মাশরাফি বিন মর্তুজার রংপুর রাইডার্স।

ফাইনালে ওয়ানডে অধিনায়কের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ দলের দুই ফরমেটের (টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি) অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটর্স। দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ার ম্যাচে তিন উইকেট হারিয়ে ১৯২ রান সংগ্রহ করে রংপুর। জয়ের জন্য ১৯৩ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রান সংগ্রহ করতে পারে কুমিল্লা।

রুবেলের করা ম্যাচের শেষ বলে আল-আমিনের ক্যাচটা ঝাঁপিয়ে পড়ে নিলেন ম্যাশ। আর তাতেই শেষ হলো ম্যাচটি। ঝাঁপ দিয়ে ক্যাচটা না ধরলেও পারতেন; কিন্তু রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক বুঝিয়ে দিলেন, কোনো অবস্থানেই কোনো কিছুকেই ছাড় নয়। এতটা পেশাদারী মানসিকতা যে দলের সেই দলেরই তো ফাইনাল খেলার কথা।

বৃষ্টির কারণে দু’দিনে ভাগ হয়ে যাওয়া ম্যাচটিতে জনসন চার্লস আর ব্রেন্ডন ম্যাককালামের অতি মানবীয় ব্যাটিংয়ের পর অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায় মাশরাফিই আবার উঠছেন ফাইনালে। আগের দিনে ৭ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৫৫ রান সংগ্রহ করা রংপুর রাইডার্স এদিন নির্ধারিত ২০ ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে ১৯২ রান সংগ্রহ করেছে। জনসন চার্লস ৬৩ বলে অপরাজিত ১০৫ রান সংগ্রহ করেন। এ ছাড়া ম্যাককালাম করেন ৪৬ বলে ৭৮। কুমিল্লার পক্ষে মেহেদি হাসান, হাসান আলী ও মোহম্মদ সাইফুদ্দিন একটি করে উইকেট দখল করেন।

জবাবে, তামিম ইকবাল ১৯ বলে ৩৬, লিটন দাস ২৮ বলে ৩৯, শোয়েব মালিক ১৪ বলে ১০, মারলন স্যামুয়েলস ২০ বলে ২০, জর্জ বাটলার ১২ বলে ২৪ রান করলে ১৫৬ রানে অলআউট ভিক্টোরিয়ান্সরা। রংপুরে পক্ষে সোহাগ গাজী একটি, মাশরাফি বিন মর্তুজা একটি, নাজমুল ইসলাম একটি ও উদানা একটি উইকেট দখল করেন।

২০১৫ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স প্রথমবারের বিপিএলে এসে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল মাশরাফি বিন মর্তুজার কাঁধে চড়েই। অথচ গত আসরে গ্রুপপর্ব পেরুতে না পারায় ফ্রাঞ্চাইজির সঙ্গে সম্পর্কটা শীতল হয়ে পড়ে টাইগার দলের ওয়ানডে অধিনায়কের। তামিম ইকবালকে দেয়া হয় নেতৃত্বের গুরুদায়িত্ব। সেই সুযোগে রংপুর রাইডার্সে এক নিমিষেই লুফে নেয় মাশরাফিকে।সেই দলটিকেই এবার হারিয়ে ফাইনালে মাশরাফি। জবাবটা তো আর মুখে দিতে হয়নি!

উল্লেখ্য, এর আগে একবার বিপিএলের ফাইনালে সতীর্থ ছিলেন সাকিব এবং মাশরাফি। তবে, এবারই প্রথম শিরোপা লড়াইয়ে মুখোমুখি হচ্ছেন দেশের দুই সেরা ক্রিকেটার। পাঁচ আসরের মধ্যে চারবারই ফাইনালে খেলছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আর বাংলাদেশের নতুন টেস্ট ক্যাপ্টেন খেলতে যাচ্ছেন তৃতীয়বারের মত। আজ মঙ্গলবার হবে ট্রফির ফয়সালা।

রিপোর্ট – জাহিদুল ইসলাম (Zahid150891@gmail.com)

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts