কোচ ইস্যুতে পাপনের অধিনায়কদের সঙ্গে গোপন বৈঠক!

তিন অধিনায়কের সঙ্গে পাপন

ঢাকায় এসেছেন সাবেক টাইগার কোচ এবং বর্তমান শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের কোচ চন্দ্রিকা হাথুরুসিংহে। পদত্যাগের কারণ ব্যাখ্যা আর কিছু আনুষ্ঠানিকতা সারতে আজ শনিবারই তিনি ঢাকায় আসেন।

তিনি যে হোটেলে উঠেছেন সেই হোটেলেই আজ কোচ ইস্যু নিয়ে জাতীয় ক্রিকেট দলের তিন ফরম্যাটের তিন অধিনায়ক ও সহকারী কোচের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন।

তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের সঙ্গে সভায় ছিলেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান, প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী। ছিলেন চার বোর্ড পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক, আকরাম খান, খালেদ মাহমুদ ও জালাল ইউনুস।

সামনেই শ্রীলঙ্কা সিরিজ। সেই সিরিজের আগে নতুন কোচ পাওয়া না গেলে দল কোন পথে এগোবে সেসব নিয়েই বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। মাশরাফি-তামিমরা বলেছেন, নতুন কোচ নিয়ে তাদের কোনো তাড়াহুড়া নেই।

সভা শেষে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের যে কোচিং স্টাফ আছে এবং যে তিন অধিনায়ক আছে, সবাইকে আমরা ডেকেছিলাম। সামনে আমাদের একটা সিরিজ আছে। আমাদের হেড কোচ নেই।

আমরা নতুন কোচের প্রক্রিয়ায় আছি। কিন্ত এমনও তো হতে পারে, এ সিরিজের আগে কোনো কোচ নিয়োগ করিনি। এর মধ্যে যদি কাউকে না আনি, তাহলে কী হবে, সেসব নিয়ে কথা হয়েছে। ‘
এসব বিষয়ে অধিনায়কদের মতামত চান বিসিবি প্রধান। কী মতামত দিলেন তারা। বিসিবি প্রধানের ভাষায়, ‘ওদের কাছে সবার আগে জানতে চেয়েছি যে ওরা আত্মবিশ্বাসী কি না। ওরা সবাই এক বাক্যে বলেছে, ওরা পুরো আত্মবিশ্বাসী যে সামনের সিরিজটা ওরা নিজেরাই করতে পারবে। তিন অধিনায়ককে বলছিলাম যে সকলকে এক সাথে সামলাতে পারবে কিনা। আসলেই ওরা আত্মবিশ্বাস নিয়ে জানিয়েছে যে পারবে। ওদের কোনো তাড়া নেই যে সিরিজের আগে তাড়াহুড়ো করে কোচ আনতে হবে। আমরা আস্তে ধীরে যেন সম্ভাব্য সেরা পছন্দের দিকে এগুতে পারি। ‘

তবে বিসিবি প্রধান এটাও মনে করিয়ে দেন যে, অধিনায়কদের কথার পর নতুন কোচের সন্ধান প্রক্রিয়া থেমে থাকবে না। তিনি বলেন, ‘তার মানে এই না যে আমরা কোচ নিচ্ছি না। কাল-পরশুও আমরা কোচ নিতে পারি। এটা ভিন্ন ইস্যু। আমি ওদেরকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে বললাম। যদি কোনো কারণে কোচ না পাই তাহলে যেন আমরা সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে পারি। ‘

নতুন কোচ এখনই পাওয়া না গেলে অন্তবর্তীকালীন কোচ হিসেবে খালেদ মাহমুদের কথা আগেই প্রকাশিত হয়েছিল। আজ সুজনের সঙ্গে যোগ করলেন সহকারী কোচ হ্যালসলের নামও, ‘কালকে আমাদের বোর্ড মিটিং আছে। সেখানে আমরা সিদ্ধান্ত নিব অন্তবর্তীকালীন অবস্থায় কাউকে আমরা এখান থেকে কাউকে হেড কোচ করব কিনা। আপাতত যে রিচার্ড হ্যালসল আছে, বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন আছে। ‘

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts