‘বিরাট’ না হয়েও বিরাট মনের পরিচয় দিলেন রোহিত!

রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলি

গেল সিরিজে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে অধিনায়ক কোহলির অনুপস্থিতিতে ‘বিরাট’ হয়ে উঠেছিলেন রোহিত শর্মা। টি টোয়েন্টিতে দ্রুততম শতরান হোক বা ওয়ান ডে-তে তৃতীয় দ্বিশতরান, রোহিতের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে একের পর এক বিস্ফোরক ইনিংস। তবে আইপিএল-এর মঞ্চে ফের একবার উজ্জ্বল রোহিত।

মুম্বাই হল রোহিতের উত্থানের প্রেক্ষাপট। মুম্বাইয়ের জার্সিতেই খেলে জাতীয় মঞ্চে আত্মপ্রকাশ তারকা ব্যাটসম্যানের। আইপিএল-এর হয়েও খেলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জার্সিতে। মুম্বাইয়ের পুত্র তাই শহরকে ভালবেসে বেনজির কাণ্ড ঘটালেন। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর এমনটাই।

আইপিএল মানে অর্থের রংমশাল। গোটা বিশ্ব জানে, টাকা ওড়ে আইপিএল-এর ময়দানে। ক্রোড়পতি লিগে খেলতে উৎসাহী গোটা বিশ্বের ক্রিকেটাররাই। স্রেফ উপার্জনের তাগিদে। তবে রোহিত শর্মা এখানেই ব্যতিক্রম। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ভালবেসে অনেক কম অর্থেই খেলতে রাজি হয়ে গেলেন রোহিত।

বুধবার সন্ধ্যাতেই বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি কোন ক্রিকেটারদের ধরে রাখছে, তার তালিকা জমা দেয় আইপিএল-এর গর্ভনিং কাউন্সিলের কাছে। সেখানেই জানা যায়, বিরাট কোহলিকে ১৭ কোটি টাকা দিয়ে ধরে রাখছে ব্যাঙ্গালুর।

সূত্রের খবর, রোহিত শর্মাকেও ‘সম্মান’ জানাতে বিরাট কোহলির অঙ্কের টাকা দেওয়ার ভাবনা চিন্তা শুরু হয়েছিল। সেই অর্থে রোহিতও টাকার অঙ্কে ছুঁতে ফেলতে পারতেন বিরাটকে। তবে সেক্ষেত্রে বাজেটে টান পড়ত মুম্বাইয়ের।

কিন্তু দলকে ভালবেসে রোহিত টিম ম্যানেজমেন্টকে জানিয়ে দেন, কম অর্থেই খেলতে রাজি তিনি। শেষমেশ টিম ম্যানেজমেন্ট সিদ্ধান্ত নেয়, ১৫ কোটি টাকা দেওয়া হবে রোহিতকে। রোহিত বরাবরই টিম-ম্যান। দলের স্বার্থে একাধিকবার তাঁকে দেখা গিয়েছে, ব্যাটিং অর্ডারের অনেক নীচে ব্যাট করতে।

২০১৩-তে নেতৃত্বের দায়িত্ব নিয়ে দলকে তিনবার ট্রফি এনে দিয়েছেন তিনি। রোহিতের এমন সিদ্ধান্তের জন্যই নিলামের সময় ৪৭ কোটি টাকা নিয়ে ক্রিকেটার কিনতে পারবে নীতা আম্বানি অ্যান্ড কোং।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts