অস্ট্রেলিয়াকে ১৫৭ রানের লক্ষ্য দিল টাইগাররা

বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৫৬

তাসকিন-সানির নিষেধাজ্ঞায় এই ম্যাচটি পরিণত হয়েছে শোকের। আগেরদিন মাশরাফির চোখের পানি সেই শোককে পরিণত করেছে শক্তিতে। তবে, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামার আগেই বড় ধাক্কাটি খেতে হলো তামিমকে হারিয়ে।

পেটের পীড়া এবং জ্বরের কারণে খেলতে পারছেন না তামিম। তবুও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রানের লড়াকু সংগ্রহ দাঁড় করাতে পেরেছে বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়াকে জিততে হলে করতে হবে ১৫৭ রান।

শুরুতে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়তে থাকলেও শেষ দিকে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ঝড়ে বাংলাদেশ লড়াকু স্কোর পেয়ে যায়। ২৯ বলে ৪৯ রানে অপরাজিত থেকে যান মাহমুদুল্লাহ। আফসোস এক রানের জন্য।

না হয় টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে তৃতীয় হাফ সেঞ্চুরিটা পেয়েও যেতে পারতেন তিনি। ৭টি বাউন্ডারির সঙ্গে একটি ছক্কা মারেন তিনি। সাকিব আল হাসান করেন ২৫ বলে ৩৩ রান। ২২ বলে ২৩ রান করেন মোহাম্মদ মিঠুন। ১০ বলে ১৩ রান করেন শুভাগত হোম।

সাব্বির রহমান আউট হন ১৭ বলে ১২ রান করে। মুশফিক অপরাজিত থাকেন ১১ বলে ১৫ রান।

তামিম না থাকাতে যেন ব্যাটিংয়ের অর্ধেক শক্তিই নাই হয়ে গেলো বাংলাদেশের। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে যেন তারই প্রতিচ্ছবি তুলে ধরলেন সৌম্য সরকার। তামিম না থাকায় সৌম্যর সঙ্গে ইনিংস ওপেন করতে নামেন মোহাম্মদ মিঠুন।

অস্ট্রেলিয়ার বোলার কাউল্টার নেইলকে মোকাবেলা করেন মিঠুন। প্রথম বলে ১ রান। পরের ৫ বল থেকে আসে আর একটি রান। দ্বিতীয় ওভারে বল করতে আসেন শেন ওয়াটসন। প্রথম বলে আউট সুইং।

দ্বিতীয় বলটাও ওয়াটসন দিলেন স্ট্যাম্পের অনেক বাইরে। মারার মত বল পেয়ে লোভ সামলাতে পারলেন না সৌম্য সরকার। খেললেন পয়েন্ট। কিন্তু দুর্ভাগ্য, দুর্দান্ত একটি শট আরও দুর্দান্ত একটি ক্যাচে পরিণত হলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের হাতে। ২ রানেই পড়লো বাংলাদেশের প্রথম উইকেট।

সৌম্য আউট হয়ে যাওয়ার পর বাংলাদেশ দলের হাল ধরেন মোহাম্মদ মিঠুন এবং সাব্বির রহমান। ইনফর্ম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাব্বিরের ওপর বেশ প্রত্যাশা তখন বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকদের। দুটি বাউন্ডারি মেরে সেই প্রত্যাশার প্রতিফলনও ঘটাতে শুরু করলেন যেন সাব্বির।

কিন্তু সেই ওয়াটসনের হাতে আবারও ধরা পড়লেন বাংলাদেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানটি।

৬ষ্ঠ ভারের প্রথম বলেই ওয়াটসনের স্লোয়ার ডেলিভারিটিকে সজোরে হাঁকাতে গিয়েছিলেন; কিন্তু ব্যাটের উপরের অংশে লেগে বল মিড অনে ক্যাচ উঠে যায়। ঝাঁপিয়ে পড়ে ক্যাচটি লুফে নেন জেমস ফকনার। ১৭ বলে ১২ রান করে আউট হয়ে যান সাব্বির।

এরপর আউট হন মোহাম্মদ মিঠুন, সাকিব আল হাসান এবং শুভাগত হোম।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment