তামিমের প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছিলেন আয়শা

আয়শা
Share Button

চলতি বছরের ২২ জুন বিয়ের চার বছর পার করলেন এই তামিম-আয়শা দম্পত্তি।
কথা হয়েছিল বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ও তার স্ত্রী আয়শার প্রেমের সূত্রপাত নিয়ে ।

আয়েশা সিদ্দিকা তখন চট্টগ্রাম সানশাইন গ্রামার স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী, এক অনুষ্ঠানে তাঁকে দেখেছিলেন একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ‘এ’ লেভেলের ছাত্র তামিম ইকবাল। দেখেই কুপোকাত।

এক বান্ধবীকে দিয়ে আয়েশার কাছে মনের কথা বলে পাঠালেন তামিম। শুনেই আয়েশা তার প্রোপোজাল প্রত্যাখ্যান করেছিল ।

আয়েশা বলেছিলেন, ‘লাভ? আই হেইট দ্য ওয়ার্ড—লাভ!’ এ রকম প্রত্যাখ্যানের পর ভালোবাসা যে আরও বাড়ে, এটা গুণীজনের কথা ।

তামিমেরও তা-ই হলো, লেগে রইলেন। ফোন করে, স্কুলের আঙিনায় নানাভাবে বুঝিয়ে তুলে ধরতে চেষ্টা করলেন হূদয়ের আকুতি। ফলাফল শূন্য।

তাদের ভাষ্যমতে, ‘সব চেষ্টা বিফলে যাওয়ার পর একদিন বললাম, আমরা অন্তত বন্ধু তো হতে পারি? এই প্রস্তাবে কাজ হলো। এ রকম নির্দোষ একটি প্রস্তাবে রাজি হয়েই বেচারি ফেঁসে গেল।

বন্ধুত্বের পর্বে আমাকে জানার সুযোগ হলো তার, দেখল যত খারাপ ভেবেছিল তত খারাপ মানুষ নই আমি…এবার টোপটা গিলে ফেলল…হা হা হা।’

অতঃপর দীর্ঘদিনের পরিচয়, পরিণয় পেরিয়ে ২০১৩ সালের ২২ জুন বিয়ের পিঁড়িতে বসেন তামিম এবং আয়শা। তাদের ঘর আলো করে এসেছেন আরহাম।
23421577_126335921367126_1421900145120772096_n

ইন্সটাগ্রামের আয়শার ব্যক্তিগত প্রোফাইল থেকে ছবিটি সংগৃহীত

চলতি বছরের ২২ জুন বিয়ের চার বছর পার করলেন এই দম্পত্তি।

তামিম ইকবাল পরিবারের অনেক কিছুই জানা যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে। বিশেষ করে ইন্সটাগ্রামে তামিম পুত্র আরহাম ইকবাল খানের নানা রকম কাণ্ড, দুষ্টুমি, মায়ের সাথে খুনসুটির ছবি দেখা যায়।

আর তার এসব ছবির প্রকাশক আর কেউ নন তামিম পত্নী আয়শা ইকবাল। এবার সেই ইন্সটাগ্রামেই পাওয়া গেল সদ্য কৈশোর পেরোনো আয়শার ছবি।

রোববার ইন্সটাগ্রামের আয়শার ব্যক্তিগত প্রোফাইলে একটি ছবি পোস্ট করেছেন তামিম পত্নী। ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘যখন আমি মাত্র ১৮ বছরের ছিলাম। সে সব পুরোনো দিন। সে সব সাধারণ জীবন।’

তবে তামিম বিয়ে করেছেন ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা এক নারীকে। যে কিনা ক্রিকেটের অনেক কিছুই বোঝেন না। কেন এমন মেয়েই পছন্দ করলেন?

এমন প্রশ্নের উত্তরে তামিম বলেছিলেন, ‘বউ ক্রিকেট খেলা না বুঝলেই ভালো। কোনো দিন মাঠে খারাপ করলে দর্শকদের নিন্দা-মন্দ শুনে ঘরে ফিরে বউয়ের কাছেও নিন্দা-মন্দ শুনতে কার ভালো লাগবে, বলুন? তার চেয়ে মাঠ আর ঘর আলাদা হয়েই থাকুক।’

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Uncategorized