ধোনির প্রথম প্রেমিকা কে জানেন?

ধোনির প্রথম প্রেমিকা

কোনটা সত্যি আর কোনটা যে মিথ্যে তা বলা দায়। আপাতত সময়ের উপরেই সব কিছু ছেড়ে দিতে হবে। মহেন্দ্র সিংহ ধোনির বায়োপিক দিনের আলো দেখলে তবেই হয়তো সত্যিটা উদঘাটন হবে। ধোনি এখন ঘোর সংসারী মানুষ। স্ত্রী সাক্ষী সিংহ রাওয়াত, মেয়ে জিভাকে নিয়ে তাঁর সুখের সংসার। বায়োপিকে কিন্তু তুলে ধরা হয়েছে অন্য গল্প। ছবিতে দেখানো হয়েছে, সাক্ষীর সঙ্গে বিয়ের আগে এক মহিলার সঙ্গে গভীর সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন ধোনি। সেই মহিলার নাম প্রিয়াঙ্কা ঝা। ধোনির বয়স তখন খুব বেশি নয়।

প্রিয়াঙ্কাকে এতটাই ভালবেসে ফেলেছিলেন ধোনি যে বাকি জীবনটাও তাঁর সঙ্গে কাটাবেন বলেই স্থির করে ফেলেন। কিন্তু মানুষ যা ভাবে তা তো হয় না সব সময়ে। এক পথ দুর্ঘটনায় প্রিয়াঙ্কা চলে যান তারাদের দেশে। প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে ধোনির ঘর বাঁধার স্বপ্নও শেষ হয়ে যায় তখন।

প্রিয়াঙ্কার মৃত্যু ধোনিকে নাড়িয়ে দেয় ভীষণভাবে। ধোনি-ঘনিষ্ঠরা মনে করতে থাকেন, মাহি বোধহয় বিবাগী হয়ে যাবেন। তাঁর ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নও আর সফল হবে না। প্রিয়াঙ্কা চলে যাওয়ার পরে প্রায় একটা বছর তীব্র মনোকষ্টে ভোগেন ধোনি। কথায় বলে, টাইম ইজ দ্য বেস্ট হিলার। অর্থাৎ সময়ই সবকিছুকে ভুলিয়ে দেয়। তেমনই ধোনিও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে ওঠেন। ক্রিকেটে মন দেন। কালক্রমে ধোনির হাতে ওঠে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ওয়ানডে বিশ্বকাপ। দেশের সফলতম অধিনায়কের মর্যাদাও পান রাঁচির রাজপুত্র। তাঁর মুকুটে যোগ হয় একের পর এক সাফল্যের পালক। ভারতের সফলতম অধিনায়কের জীবনের এই কাহিনি অনেকের কাছেই অজানা ছিল। বায়োপিকে রাঁচির রাজপুত্রের এ হেন প্রেম কাহিনি তুলে ধরা হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে।

গোটা ভারত ইতিমধ্যেই জেনে ফেলেছে ধোনি-প্রিয়াঙ্কার সম্পর্কের কথা। বায়োপিকের অভিনেত্রী একটি সংবাদমাধ্যমে যা বলেছেন, তাতে মনে হচ্ছে ‘কহানি মে টুইস্ট’। ছবিতে ধোনির সেই প্রেমিকার ভূমিকায় অভিনয় করছেন দিশা পাটানি। একটি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময়ে দিশাকে প্রিয়াঙ্কার মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল। সেই প্রশ্নের জবাবে দিশা বলছেন, ‘সেরকম তো কিছু ঘটেনি।’ অর্থাৎ ধোনির সেই প্রথম প্রেমিকার মৃত্যু আজও ঘটেনি তাহলে। অবশ্য পরে দিশা সাসপেন্স বাড়িয়ে বলেছেন, ‘ছবিটা দেখলেই সব জানতে পারবেন।’ সূত্র-এবেলা

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts