বাংলাদেশকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করতে চলেছে আইসিসি!

Share Button

এমনিতে বাংলাদেশের প্রতি নানা বৈষম্যমূলক আচরণে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি বিতর্কিত।

এবার সংস্থাটি নতুন এক ষড়যন্ত্র করতে চলেছে। এতে করে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট ধ্বংস হবে এবং আর্থিকভাবেও বিসিবি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

শর্তসাপেক্ষে দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্ট প্রথা মেনে নিচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড- বিসিবিকে বাধ্য করতে যাচ্ছে।

টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ যখন তলানিতে, পয়েন্ট মাত্র ১৯, তখন আইসিসির টেস্ট রেলিগেশন আইডিয়া মেনে নেয়া ছাড়া উপায় ছিল না বিসিবির।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে ১০ থেকে ৯ এ ওঠার সেই চ্যালেঞ্জটা নিয়ে এখন র‌্যাংকিংয়ে ৮ নম্বরে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রায় ছুঁয়ে ফেলে আইসিসির চোখ রাঙানির জবাব দিয়েছে বাংলাদেশ।

আর মাত্র ৮ পয়েন্ট বাড়িয়ে নিতে পারলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টপকে সেরা ৮ এ উঠে আসবে তারা। গত ২ বছরের পারফরমেন্সে টেস্টে যখন লক্ষণীয় উন্নতি হয়েছে, হোমে ১২ টেস্টে ৩ জয় ছাড়াও ড্র করেছে ৭টিতে, তখনই বড় ধরনের ধাক্কা খেতে হচ্ছে মুশফিকুরদের।

টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে জিম্বাবুয়েকে টপকে যখন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ছুঁয়ে ফেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ, তখন ২ বছর আগের আইডিয়া থেকে সরে দাঁড়িয়ে নুতন করে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে আইসিসি।

টেস্ট খেলিয়ে দেশের সংখ্যা বাড়াতে দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্ট প্রবর্তন করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবুয়ে এবং ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপের ২ ফাইনালিস্টের সঙ্গে বাংলাদেশকে টেস্টের দ্বিতীয় স্তরে নামিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র করছে আইসিসি।

শীর্ষ ৭ র‌্যাংকিংধারীদের নিয়ে প্রথম স্তর এবং পরের ৩ র‌্যাংকিধারীর সঙ্গে ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপের ২ ফাইনালিস্টকে নিয়ে ২০১৯ সাল থেকে দ্বিতীয় স্তরের টেস্ট ফর্মুলা প্রবর্তনে আইসিসি অনুমোদন দিলে বড় দলগুলোর সঙ্গে টেস্ট খেলার সুযোগ হারাবে বাংলাদেশ।

তবে অধিকাংশ পূর্ণ সদস্য দেশ এই প্রস্তাবের পক্ষে থাকায় এ মাসের শেষ সপ্তাহে স্কটল্যান্ডের এডিনবার্গে আইসিসির বার্ষিক সাধারণ সভায় দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্ট প্রস্তাব অনুমোদিত হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন বিসিবির সিইও নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন।

তিনি বলেন, ‘সর্বশেষ সভায় দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্টের প্রেজেন্টেশন করেছে আইসিসি। আইসিসির ক্রিকেট কমিটিও সম্প্রতি এই প্রস্তাবকে সমর্থন করে বিবৃতি দিয়েছে। আগে আইসিসি কোনো প্রস্তাব করলে বিরোধিতা করত চার-পাঁচটি দেশ। কিন্তু দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্ট ফর্মুলা নিয়ে বিরোধিতা দেখছি না। আমরা একা বিরোধিতা করে কিছুই করতে পারব না।’

প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ টেস্ট দেখতে দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্ট প্রবর্তনের যে যুক্তি দেখিয়েছেন আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন, সেই চ্যালেঞ্জ জিতে বাংলাদেশ প্রথম স্তরে উঠবে বলে বিশ্বাস বিসিবির সিইও-র।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের জন্য এটা এক ধরনের সুযোগও। কারণ,ওয়েস্ট ইন্ডিজ,জিম্বাবুয়ে এবং ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপের দুই ফাইনালিস্টের সঙ্গে খেলে আমরা র‌্যাংকিং বাড়িয়ে নিয়ে ৭ নম্বরে উঠে প্রথম স্তরে ওঠার সুযোগ পাচ্ছি। যেহেতু এখন আমাদের সঙ্গে বড় দলগুলো খেলতে তেমন আগ্রহী নয়, তাই দ্বিতীয় স্তরে খেলে প্রমোশন পেয়ে প্রথম স্তরে উঠলে শর্তসাপেক্ষে টেস্টের দ্বিতীয় স্তরে খেলতে রাজি বলে জানিয়েছেন তিনি।

নিজামুদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের শর্ত দুটি। প্রথমটি হল- সদস্য পদের ক্ষেত্রে আমাদের স্ট্যাটাস এখন যা আছে, তা থাকতে হবে। দ্বিতীয়টি হল রাজস্ব। ন্যূনতম গ্যারান্টি মানি কত পাব,তা নিশ্চিত করে বলতে হবে আইসিসিকে।’

২০১৪ সালে আইসিসির বার্ষিক সভায় ২০২০ সাল পর্যন্ত এফটিপির আওতায় দ্বি-পাক্ষিক সফরসূচি চূড়ান্ত হলেও ধাক্কা আসছে চলমান এফটিপিতে।

এ মাসের শেষদিকে স্কটল্যান্ডের এডিনবরায় আইসিসির বার্ষিক সাধারণ সভায় দ্বি-স্তর বিশিষ্ট টেস্ট ফর্মুলা অনুমোদিত হলে প্রথম স্তরের দেশ পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড,শ্রীলংকা এবং অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত ৯টি টেস্ট খেলা থেকে বঞ্চিত হবে বাংলাদেশ।

শুধু তাই নয়, স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল গাজী টিভির সঙ্গে ৬ বছরের চুক্তিতে ২০ মিলিয়ন ২৫ হাজার মার্কিন ডলারে (বাংলাদেশী টাকায় ১৬০ কোটি ২০ লাখ টাকা) বিক্রিত মিডিয়া অ্যান্ড মার্কেটিং রাইটস থেকেও আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হওয়ার পথে বাধা আসবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts