বাংলাদেশকে পাত্তা দিচ্ছে না আয়ারল্যান্ড

বাংলাদেশকে পাত্তা দিচ্ছে না আয়ারল্যান্ড

আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে থাকার কারণে টেস্ট খেলুড়ে দেশ হয়েও বাছাইপর্ব খেলতে হচ্ছে বাংলাদেশ দলকে। প্রথম ম্যাচে তারা নেদার‌ল্যান্ডসের বিপক্ষে জয় পেলেও শুক্রবারের ম্যাচটিকেও তারা গুরুত্বের সাথেই নিচ্ছেন। তবে আয়ারল্যান্ডের সহ-অধিনায়ক কিন্তু বাংলাদেশ দলকে তেমন একটা পাত্তা দিচ্ছেন না।

বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচটি বিকেল সাড়ে তিনটায় অনুষ্ঠিত হলেও শুক্রবারের ম্যাচটি রাত আটটায় শুরু হবে ধর্মশালায়।

আয়ারল্যান্ডের সহ-অধিনায়ক এবং উইকেটরক্ষক গ্যারি উইলসন মাশরাফি বাহিনীকে একটু প্রচ্ছন্ন হুমকিই দিয়েছেন। প্রথম ম্যাচে তারা ওমানের বিপক্ষে পরাজিত হয়েছে। আর টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে তাদের এ ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই। তারপরও তিনি মনে করছেন বাছাইপর্বে যে দলগুলো অংশ নিচ্ছে প্রতিটি দলই সমান প্রতিভাধর।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এই টুর্নামেন্টের বাছাইপর্বে যারা খেলছে প্রত্যেকেই সমান শক্তিশালী দল। তাই বাংলাদেশ দলকে নিয়ে আমরা আলাদাভাবে চিন্তা করছি না। আমরা জয়ের প্রত্যাশা নিয়েই ম্যাচ খেলব।’

আগের টি২০ ম্যাচের পরিসংখ্যানটাও তাকে ভাবাচ্ছে না। বাংলাদেশের বিপক্ষে তারা পূর্বে চার ম্যাচ খেলে জয় পেয়েছে মাত্র একটিতে। তারপরও তিনি জানান, দলের সবাই খুবই আত্মবিশ্বাসী এবং ভালো খেলার জন্য উদগ্রীব। হয়তো ২০০৯ সালে পাওয়া জয়কে পুঁজি করেই তিনি সাহসী মনোভাব ধরে রেখেছেন।

আর তাইতো উইলসন বাংলাদেশকে নিজেদের কাতারের দল হিসেবেই বিবেচনা করছেন। বর্তমানের বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি মোটেও চিন্তিত নন। তিনি বেশ গর্ব করেই বলেছেন, ‘এর আগেও আমরা বাংলাদেশ দলের সাথে খেলেছি এবং জয়ও পেয়েছি।’

আর বাংলাদেশের কোচ এবং অধিনায়ক কিন্তু আয়ারল্যান্ডকে ছোট করে দেখছেন না। তারা বেশ গুরুত্বের সাথেই নিচ্ছেন দলটিকে। কেননা টি২০ ক্রিকেটে যে কোনো মুহূর্তে যে কোনো কিছু হতে পারে। তাই আগে থেকেই সতর্ক থাকাই শ্রেয়। অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস অনেক সময় খারাপ ফলও বয়ে আনতে পারে।

তাইতো দলের প্রধান কোচ হাথুরুসিংহে বলেন, ‘আয়ারল্যান্ড খুব সহজে বাংলাদেশকে জিততে দেবে না। কেননা এ মুহূর্তে তারা জয়ের ব্যাপারে খুবই আত্মবিশ্বাসী।’
তবে কোচ এটাকে ইতিবাচক দিক হিসেবেই দেখছেন। আর তিনি এও জানান, প্রথম ম্যাচে জয়ে তার দল অনেক আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছে। যা এ ম্যাচেও কাজে দেবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment