বাংলাদেশের আম্পায়ারিং নিয়ে এনামুল হক মনির বোমা!

বাংলাদেশের আম্পায়ারিং নিয়ে এনামুল হক মনির বোমা!
Share Button

নিরপক্ষতার প্রশ্নে কথা বলতে গিয়ে এভাবেই সোজাসাপ্টা মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) একনম্বর আম্পায়ার এনামুল হক মনি। শোনা যাচ্ছে, বিসিবির আসন্ন নির্বাচক কমিটিতে জায়গা হচ্ছে তার।

সেই বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়েই উঠে আসে আম্পায়ারিং নিয়ে বিভিন্ন অভিজ্ঞতার গল্প।

বরাবরই ‘নিরপেক্ষ’ আম্পায়ার বলে দারুণ সুনাম রয়েছে সাবেক এই ক্রিকেটারের। যার শতভাগ বজায় থাকে বাংলাদেশের ম্যাচেও। ফলাফলটা খুব ভালো নয়, তার দেওয়া প্রায় সব ভুল সিদ্ধান্তই গেছে বাংলাদেশের বিপক্ষে।

এতে সমালোচিত হয়েছেন সমর্থকদের কাছে। মনি অবশ্য সবকিছুই চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন।

দেশের ম্যাচ পরিচালনা করতে গিয়ে চাপের মুখে পড়তে হয় কিনা, এমন প্রশ্নের উত্তরে তাই শীর্ষস্থানীয় একটি দৈনিককে বললেন, ‘দেশের ম্যাচে নিরপেক্ষতা ধরে রাখার একটা চাপ থাকে; এটা ভয়াবহ। দেশের খেলা হলে সবসময় মনে হয়—দেশের পক্ষে কোনো ভুল সিদ্ধান্ত না যায়। এই মনে হওয়া থেকে উল্টো নিজের দেশের দল ক্ষতিগ্রস্ত হয়। একটা কথা স্বীকার করি, আমি এ যাবৎ যত ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছি, তার ৯৯ ভাগই বাংলাদেশের বিপক্ষে গেছে। এটা ওই নিরপেক্ষ থাকার চাপ থেকে।’

মজার ব্যাপার হলো, এমন কাজে সবচেয়ে বড় চাপটা আসে সমর্থকদের কাছ থেকে। কিন্তু ব্যাপারটি উল্টো উপভোগ করেন বাংলাদেশের শীর্ষ এই আম্পায়ার। তার কাছে নাকি এটা ক্রিকেটার থাকা অবস্থার মতোই।

বললেন, ‘সমর্থকদের চাপটা আমি বড় করে দেখি না। এটা খেলোয়াড়ি জীবনের মতোই। সমর্থকরা তার ওপরই চাপ তৈরি করে, যাকে তারা বিশ্বাস করে, ভালো মনে করে। ফলে এটা সমস্যা না।’

১৯৯০-২০০৩ পর্যন্ত ওয়ানডে আর টেস্ট মিলিয়ে খেলেছেন ৩৯টি ম্যাচ (ওয়ানডে ২৯, টেস্ট ১০)। পরবর্তীতে অবসরে গিয়ে মনোযোগ দেন আম্পায়ারিংয়ে।

২০০৬ সালের ৩ নভেম্বর জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক আম্পায়ারিংয়ে আসেন তিনি। এখন পর্যন্ত একটিমাত্র টেস্টে আম্পারায়িং করলেও, ৫৪টি ওয়ানডে ও ১৪টি টি-টোয়েন্টিতে আম্পায়ার হিসেবে কাজ করেছেন তিনি।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts