মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়া সবার জন্য ‘বার্তা’

দেশে ফিরছেন
Share Button

দলের সঙ্গেই মাঠে এলেন মাহমুদউল্লাহ। মলিন-বিমর্ষ মুখ দেখেই বোঝা গেল কিছু একটা হয়েছে। সবাই যখন ওয়ার্মআপে ব্যস্ত তাদের চেয়ে অনেক দূরে গিয়ে লম্বা সময় কথা বললেন দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদের সঙ্গে। জেনে গেলেন, ব্যাট হাতে সাম্প্রতিক বাজে ফর্মের জন্য মঙ্গলবার সকালে ফিরে যেতে হচ্ছে তাকে।

ওয়ানডে সিরিজে হয়তো ফিরতে পারেন মাহমুদউল্লাহ। সাবেক অধিনায়ক মাহমুদ মনে করেন, টেস্ট সিরিজের মাঝপথে তাকে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত পুরো দলের জন্যই একটি বার্তা।

“এখানে পারফরম্যান্সটাই গুরুত্বপূর্ণ। দলে খেলতে হলে পারফর্ম করতে হবে। টিম কম্বিনেশনের একটা ব্যাপার থাকে। তবে সত্যি বলতে কি, পারফরম্যান্সের উপর কিছুই নেই।”

“যেহেতু মাহমুদউল্লাহকে দ্বিতীয় টেস্টের জন্য বিবেচনা করা হয়নি সেহেতু দেশে ফিরে যাচ্ছে। আমার মনে হয়, তাকে বিবেচনা করা হয়নি পারফরম্যান্সের জন্যই। টিকেট পেলে মঙ্গলবার সকালেই দেশে ফিরে যাবে।”

সাবেক অধিনায়ক মাহমুদ বহুদিন ধরে মাহমুদউল্লাহর মেন্টর। প্রিয় শিষ্যকে শততম টেস্টের স্কোয়াডে না থাকার কঠিন সিদ্ধান্তটা জানিয়েছেন দলের ম্যানেজারই।

“আমাকেই কথা বলতে হয়েছে। আমার জন্য হার্ড জব। সবাই চায় (মাহমুদউল্লাহ) রিয়াদের সঙ্গে ক্লোজ বেশি বলে আমিই যেন বলি। আমি মনে করি, প্রত্যেক ক্রিকেটারের জীবনেই এমন উত্থান-পতন থাকে।”

“ওর সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স হয়তো দলের প্রত্যাশা অনুযায়ী হচ্ছে না। আমি মনে করি, রিয়াদ যথেষ্ট পরিণত। ও বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য পরীক্ষিত পারফরমার। আশা করি, পারফরম্যান্স দিয়েই ও আবারও দলে ফিরে আসবে।”

শততম ম্যাচের রোমাঞ্চ ছুঁয়ে যাচ্ছে স্কোয়াডের সবাইকে। সেই রোমাঞ্চ অনেকটাই ম্লান হয়ে গেছে মাহমুদউল্লাহর ফিরে যাওয়ার খবরে। মাহমুদ স্বীকার করলেন, পুরো দলই বিষণ্ন হয়ে পড়েছে।

“প্রত্যেক খেলোয়াড়ের জন্যই এটা কঠিন সিদ্ধান্ত। খেলতে না পারাটা কষ্টের। অবশ্যই রিয়াদ কষ্ট পেয়েছে। মন খারাপ থাকলেও সে বিষয়টাকে পজিটিভলি নিয়েছে।”

“মন খারাপতো সবারই থাকবে। এটা খুবই স্বাভাবিক। রিয়াদ এতো বছর দলের দলের সঙ্গে আছে। ও না থাকলে তো অন্যদের মন খারাপ হবেই।”

গল টেস্ট ২৫৯ রানে হেরে দুই ম্যাচের সিরিজে পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ। আবেগকে এখন প্রশ্রয় দেওয়ার মতো জায়গায় নেই দল। স্কোয়াড থেকে মাহদুউল্লাহকে হারানোর কষ্ট ভুলে মাঠে সবাইকে পারফর্ম করার তাগিদ দিয়েছেন সাবেক এই অধিনায়ক।

কঠিন সময় আগেও গেছে মাহমুদউল্লাহর। প্রতিবার ফিরেছেন আগের চেয়ে দৃঢ় হয়ে। মাহমুদের বিশ্বাস, এবারের অনাকাঙ্ক্ষিত বিরতি আরও পরিণত করবে মাহমুদউল্লাহকে।

“অনেক সময় বলে, বিরতি মানুষকে ফ্রেশ করে। আমি মনে করি, এই বিরতিটা রিয়াদের জীবনে একটা টার্নিং পয়েন্ট হতে পারে। আমি ওর জন্য মেন্টর। আমি মনে করি, ওর জন্য ভালো হতে পারে।”

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts