মুশফিক যে কারনে ক্রিকেটার হলেন

মুশফিকুর রহীম
Share Button

বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে বিকেএসপির অবদান কতটা? নতুন নতুন ক্রীড়াবিদ তৈরিতে দেশের এ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কতটা অবদান রাখতে পেরেছে ? তা নিয়ে একটা ছোট খাট বিতর্ক হতেই পারে। তবে বাংলাদেশের টেস্ট যাত্রার সাথে বিকেএসপির নাম জড়িয়ে আছে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে। থাকবেও চিরদিন।

বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয় বিকেএসপির ছাত্র। আর শততম টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমও সেই প্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করা।

২০১০ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশ যখন মুশফিকের অগ্রজপ্রতিম নাঈমুর রহমান দুর্জয়ের নেতৃত্বে ভারতের সঙ্গে প্রথম টেস্ট খেলতে নামেন মুশফিক তখন কিশোর। বিকেএসপির ক্লাশ সেভেনের ছাত্র। ‘আমার প্রতিষ্ঠানের বড় ভাই অভিষেক টেস্টে দেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, সেটা দারুণভাবে মনে দাগ কেটেছিল। মুশফিক অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন দারুণভাবে। টেস্ট ক্রিকেটার হবার স্বপ্নর সূচনাও তখন।`

কী আশ্চর্য! সেদিনের ক্লাশ সেভেনের ছাত্র মুশফিকুর রহীম আজ বাংলাদেশের অধিনায়ক। শতততম টেস্টের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে সেই ২০০০ সালের নভেম্বর মাসের প্রথম ভাগের কথা বার বার মনে পড়ছে। মুশফিক খানিকটা নষ্টালজিক। অভিষেক টেস্ট দেখে দেখেই মনের গহীনে টেস্ট ক্রিকেটার হবার স্বপ্ন জাগে।

তারপর থেকে কঠিন পণ, আমাকে টেস্ট ক্রিকেটার হতেই হবে। সে পণ রক্ষা হয়েছে ২০০৫ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লর্ডসে টেস্ট অভিষেকের মধ্য দিয়ে। ১৭ বছর আগের কিশোর মুশফিক এখন শুধু টেস্ট ক্রিকেটারই নন বাংলাদেশ জাতীয় দলের টেস্ট অধিনায়কও। তবে এর আগে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলেরও অধিনায়কও ছিলেন মুশফিক।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts