সাকিব প্রস্তুত ‘নিউজিল্যান্ড চ্যালেঞ্জ’ নিতে

‘নিউজিল্যান্ড চ্যালেঞ্জ’ নিতে প্রস্তুত সাকিব
Share Button

দীর্ঘ দুই বছরেরও বেশি সময় পর দেশের বাইরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে নিউজিল্যান্ড-বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ।
তবে এই সিরিজের আগে কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিতে অস্ট্রেলিয়ায় ক্যাম্প করছে টাইগাররা। গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার দুইটি ফ্লাইটে অস্টেলিয়ায় পৌঁছায় মাশরাফি-মুশফিকরা।

টাইগাররা সর্বশেষ ২০১৪ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দেশের বাইরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলেছিল। এরপর মাঝে দুটি আলাদা ফরম্যাটের বিশ্বকাপে অংশ নিলেও সিরিজ খেলা হয়নি তাদের। ঘরের মাটিতে টানা কয়েকটি ওয়ানডে সিরিজ জয়ের পর এবার বিদেশের মাটিতেও সেই সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় টাইগারদের জন্য বেশ বড় একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবেই বিবেচিত হচ্ছে।

আর এই চ্যালেঞ্জটি সাদরেই গ্রহণ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।
দীর্ঘদিন পর বিদেশের মাটিতে খেলার জন্য প্রস্তুত ক্রিকেটাররা বলে জানিয়েছেন সাকিব। সাংবাদিকদের সাকিব বলেন, ‘আসলে কোন কিছুই অসম্ভব না। আমাদের টিমটা ভালো করছে এবং আমি যেনো সবাই এই ফর্মটা ধরে রাখতে পারে এবং অন্যরাও যেনো ফর্মে ফিরতে পারে। আমার কাছে মনে হয় খুব ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ সিরিজ হবে’।

নিউজিল্যান্ডে গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে দুটি ম্যাচে টাইগাররা ভালো পারফর্মেন্স করলেও, এবার দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বলেই উইকেটের আচরণ আর তেমনটি হবে না। আর এক্ষেত্রে দায়িত্বটা নিতে হবে ব্যাটসম্যানদেরই। নিজেদের মাটিতে মাশরাফি-সাকিবরা এখন সত্যিকার অর্থেই বড় দল হিসেবে গণ্য হয়। তবে বড় দলগুলোর বিপক্ষে নিয়মিত জয়ের জন্য বেশী ম্যাচ খেলার বিকল্প নেই বলে মনে করছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব।

সাকিব বলেন, ‘তিন চার বছর ধরে ওয়ানডেতে কিন্তু নিয়মিতই জিতি। হোমে যত বড় দলই আসুক আমরা কিন্তু জেতার জন্য খেলি। এই অভ্যাসটার জন্য আমাদের নিয়মিত টেস্ট খেলতে হবে। হোমে আগে জেতা শুরু করতে হবে বা ড্র করতে হবে। তারপরেই আসলে আমরা দেশের বাইরের কথা চিন্তা করতে পারবো’।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts