সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মূল ভরসা মুস্তাফিজই

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মূল ভরসা মুস্তাফিজই
Share Button

এলিমেনটর পর্বে কলকাতাকে বিদায় করে ফাইনালে পথে রয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। শুক্রবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে হায়দরাবাদ মুখোমুখি হবে প্রথম কোয়ালিফায়ারে বেঙ্গালুরুর কাছে হেরে যাওয়া গুজরাট লায়ন্স। এই ম্যাচে জয়ী দল ২৯ এপ্রিল ফাইনাল খেলবে বেঙ্গালুরুর সঙ্গে। ফাইনালে উঠতে মরিয়া হায়দরাবাদ। সঙ্গে গুজরাটও।

তবে হায়দরাবাদকে ফাইনালে উঠতে হলে ভাঙতে হবে গুজরাটের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপ। যেখানে রয়েছে ম্যাককালাম, রায়না, স্মিথদের মতো ব্যাটসম্যান। তবে এই ব্যাটিং লাইন আপ ভাঙতে হায়দরাবাদ অধিনায়ক ওয়ার্নারের ভরসা দলের তীক্ষ্ণ বোলিং লাইন আপ। এর মধ্যে ওয়ার্নারের মূল ভরসা বাংলাদেশের পেস সেনসেশন মুস্তাফিজুর রহমান। আর এমনটিই জানিয়েছেন হায়দরাবাদ অধিনায়ক।

শেষ ম্যাচে কলকাতার বিরুদ্ধে চার ওভারে ২৮ রান দিয়েছেন মুস্তাফিজ। তবে পাননি উইকেটের দেখা। তবে ডেথ ওভারে তার বোলিং ছিল দেখার মতো। যেখানে কলকাতার ব্যাটসম্যানরা হয়েছিল পরাভূত। আর তাই এমন বোলিং অস্ত্রের প্রশংসায় পঞ্চমুখ অধিনায়ক ওয়ার্নারও, ‘মুস্তাফিজ বড় ট্যালেন্ট। আমি চেষ্টা করেছি ওকে সতর্কভাবে ব্যবহার করতে। এমন সময় আক্রমণে আনতে যখন হয়তো ব্যাটিং পাওয়ার প্লে হয়ে গেছে। প্রচণ্ড মারের তোড়ের মধ্যে ওকে না ফেলতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ওকে খুব ভালবাসি। ও যা ফিল্ড চায়, তা-ই দিই। ওর ভাষা সমস্যা কাটিয়ে উঠে ওকে যত পারি স্বাচ্ছন্দ করার চেষ্টা করি। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ একটা পরিবারের মতো। আর তার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য মুস্তাফিজ।’

মুস্তাফিজের জন্য রাখা হয়েছে দোভাষী। তবে মাঠে তো তারা থাকেন না। তখন কিভাবে তার সঙ্গে কথা বলেন ওয়ার্নার। তার জবাবে ওয়ার্নার বলেছেন, ‘ তখন আমরা ক্রিকেটিং ল্যাঙ্গোয়েজে আদান-প্রদান করি। সিগন্যালও করি। ইয়র্কার দিতে বললে নীচে দেখাই। স্লোয়ার বললে হাত দিয়ে দেখাই’।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts