নিতম্বে কেন চড় মারেন রোনাল্ডোরা?

নিতম্বে কেন চড় মারেন রোনাল্ডোরা?
Share Button

খেলাধুলোর ময়দানে এখন ভাইরাসের মতো ছড়িয়ে পড়েছে ‘বাট স্ল্যাপ’। সোজা কথায়, পশ্চাৎদেশে চড়। ইউরো চলছে। সেখানে দেখবেন ফুটবলাররা একে অপরের পশ্চাৎদেশে হালকা চাঁটি দিচ্ছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিয়ানরা ‘হাই ফাইভ’-এর জন্য বিখ্যাত। সেই ‘হাই ফাইভ’ সংক্রমণের আকারে ছড়িয়ে পড়েছিল গোটা ক্রিকেটবিশ্বে।

ক্রিকেটাররা ‘হ্যান্ড শেক’ করেন। ফুটবল মাঠে আবার জার্সি বিনিময় হয়। ইদানীং দেখা যাচ্ছে, ‘বাট স্ল্যাপ’। ফুটবলাররা একে অপরের নিতম্বে হাল্কা চড় মারছেন। একই দল ও প্রতিপক্ষ নির্বিশেষে। ক্রিকেটাররাও তাই। অন্য খেলাতেও সেরকমই দেখা যাচ্ছে।

কেন? পশ্চাৎদেশে হাল্কা চাপড় মারা কি শালীনতার মাত্রা ছাড়াচ্ছে না? দৃষ্টিকটূ নয় কি? ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো ও লিওনেল মেসির সঙ্গে দেখা। দু’ জন দু’ জনের নিতম্বে হাল্কা চড় মারলেন। খেলোয়াড়রা কী বলছেন? তাঁদের বক্তব্য, পশ্চাৎদেশে চড় মারার অর্থ অন্য। এর অর্থ হল, ভাল কিছু করলে সেটাকে মর্যাদা দেওয়া। কাঁধে বা পিঠে চাপড় মারার অর্থও তাই। হঠাৎ করে কারো নিতম্বে হাত দেওয়া যায় না। সেটা দৃষ্টিকটূ ব্যাপারও বটে। নিতম্বে চড় মারার অর্থ পারস্পরিক সম্পর্কও ভাল। নাহলে কেউ ওভাবে নিতম্বে চাঁটি মারতে পারে না।

শোনা যায় কাউ বয়রা ঘোড়ার পিছনে এভাবে চাপড় মারত। কিন্তু খেলার মাঠে সম্পূর্ণ অন্য ব্যাপারে বাট স্ল্যাপ হয়। খেলার ময়দানে পারফরম্যান্সই আসল ব্যাপার। আর পারফরম্যান্স ভাল করলে, সেই পারফরম্যান্সকে কুর্নিশ জানানোর জন্যই নিতম্বে হাল্কা করে চড় মারা হয়।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts