নোটিফিকেশনে ফেসবুকের দুঃখপ্রকাশ!

Facebook

পাকিস্তানে গতকাল রোববার আত্মঘাতী বোমা হামলার পর ফেসবুকের অনেক ব্যবহারকারী একটি নোটিফিকেশন পেয়েছিলেন। এতে অনেকেই চমকে উঠেছিলেন। কারণ, কী ঘটনা ঘটল যে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত নোটিফিকেশন এল। দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন অনেকেই।

মোবাইলে খুদে বার্তা পেয়েও অনেকে বিচলিত হয়ে পড়েন। কারণ, নোটিফিকেশনে লেখা ছিল, ‘আপনি কি বিস্ফোরণে আক্রান্ত হয়েছেন?’

ইস্টার সানডের দিনে পাকিস্তানের লাহোরের গুলশান-ই-ইকবাল পার্কে বোমা হামলায় ৭০ জনের অধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তানের (টিটিপি) সহযোগী সংগঠন জামাত-উল-আহরার ওই হামলার চালিয়েছে বলে দাবি করেছে।

পাকিস্তানের লাহোরের ওই পার্কে বোমা হামলার সময় আশপাশের লোকজন নিরাপদ আছেন কি না, বন্ধু তালিকার সদস্যদের এটা জানাতেই নোটিফিকেশনটি দেওয়া হয়েছিল। তবে লাহোরের পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা ওই নোটিফিকেশন পেয়েছেন।

রয়টার্স ও এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ডিজাস্টার রেসপন্স পাতায় এক লেখায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ওই নোটিফিকেশনের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে। ফেসবুক বলেছে, ‘এই ধরনের ভুল আমাদের অনিচ্ছাকৃত।

আমরা দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করেছি। যাঁরা ভুল করে এমন নোটিফিকেশন পেয়েছেন, আমরা সেই সব ব্যবহারকারীর কাছে ক্ষমা চাচ্ছি।’
২০১৪ সালের অক্টোবরে ফেসবুক ‘সেফটি চেক’ সুবিধা চালু করে। দুর্ঘটনাকবলিত এলাকার ফেসবুক ব্যবহারকারীরা এই সুবিধার মাধ্যমে বন্ধু তালিকার সদস্যদের জানাতে পারেন, তিনি নিরাপদ আছেন কি না।

স্বয়ংক্রিয় ‘সেফটি চেক’ সুবিধা থেকে অনেক সময়ই ভুল বার্তা যায়। এ ধরনের বার্তায় জনগণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে পারে। আবার সব দুর্ঘটনায় ‘সেফটি চেক’ চালু না করাতেও সমালোচনার মুখে পড়ে ফেসবুক।

যেমন, গত বছরের নভেম্বরে ফ্রান্সের প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলায় সুবিধাটি চালু করা হলেও লেবাননের বৈরুত বোমা হামলা হলে তা চালু করা হয়নি। প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ পর্যন্ত এ জন্য ক্ষমা চেয়েছিলেন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment