ঢাবি ছাত্রীকে পুলিশের কটূক্তি!

ঢাবি ছাত্রীকে পুলিশের কটূক্তি!
Share Button

পুলিশের মহাপরিদর্শকের (আইজি) গাড়ি যাবে বলে ফুটপাথে দাঁড়ানো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে কটূক্তি করেছেন এক পুলিশ সদস্য।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী প্রতিবাদী হয়ে ওঠলে ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যান গেটের সামনের সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

শিক্ষার্থীরা জানায়, সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান, প্রাণ পরিসংখ্যান ও তথ্য পরিসংখ্যান বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্রী হাবিবা জান্নাত ও তার বন্ধুরা ফুটপাথে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এ সময় পুলিশ কনস্টেবল রহুল আমিন আইজির গাড়ি যাওয়ার কথা বলে তাদের ওই স্থান থেকে চলে যেতে বলেন। কনস্টেবল তাদের সঙ্গে দুর্বব্যবহার করার এক পর্যায়ে হাবিবাকে কটূক্তিও করেন।

হাবিবাসহ অন্যরা সঙ্গে সঙ্গেই কনস্টেবলের এই আচরণের প্রতিবাদ জানান। এ সময় অন্য পুলিশ সদস্যরাও তাদের উপর চড়াও হয়।

তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এম আমজাদ আলীর বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন হাবিবা। প্রক্টর অভিযোগটি ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করেন।

এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে সক্রিয় বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রক্টর কার্যালয়ে জড়ো হন।

পরে সেখানে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়সহ রমনা জোনের পুলিশ কর্মকর্তারাও হাজির হন।

প্রক্টর, পুলিশ কর্মকর্তা ও ছাত্রনেতারা উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে বসেন। সেখানে ঘটনার জন্য কনস্টেবল রুহুল আমিন হাবিবার কাছে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চান। হাবিবাও তাকে ক্ষমা করে দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

হাবিবা জান্নাত বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলে থাকেন। তিনি বামপন্থী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি।

ঘটনার ব্যাপারে প্রক্টর এম আমজাদ আলী বলেন, সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি মিটমাট করা হয়েছে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts