নিরব অভিনীত নিষিদ্ধ ছবির ট্রেইলর প্রকাশ ! (ভিডিও)

Nirab and Atika
Share Button

প্রায় তিন বছর আগে বাংলাদেশী মডেল-অভিনেতা নিরব ও সিঙ্গাপুরের মডেল-অভিনেত্রী আতিকা সোহাইমি অভিনয় করেন মালোয়েশিয়‍ায় প্রযোজনার একটি ছবি। প্রথমে এর নাম ‘মাংগালা কাউবয়’ থ‍াকলেও পরে এ ছবির নাম রাখা হয়েছে ‘বাংলাশিয়া’। ৯২ মিনিটের এ ছবিটি প্রদর্শিত হয়েছে গতবছরের ৬ মার্চ থেকে জাপানের ওসাকা এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে। চলচ্চিত্রটি বাংলা ভাষাসহ মোট ৬টি ভাষায় সাব টাইটেলে ডাবিং হয়েছে কিন্তু এদেশের দর্শকেরা ছবিটি দেখতে পারেন নি।

চলচিত্রটি মুক্তির দিন ধার্য ছিল ২০১৪ সালের ৩০ই জানুয়ারী অর্থাৎ মালয়েশিয়ার লুনার নববর্ষের আগেরদিন । তবে এর আগেই মালয়শিয়ার ফিল্ম সেন্সরবোর্ড ছবিটি নিষিদ্ধ করে দেয়।কারণ মালয়েশিয়ার প্রেক্ষাপটে ‘এন্টি-গর্ভমেন্ট’ বার্তা নিয়ে তৈরি হয়েছে বলে মনে করেছে সেখানকার সেন্সরবোর্ড। নিরব জানান, দেশটিতে নানা ধরনের অপরাধ এবং প্রবাসীদের সঙ্গে অসদাচরণ নিয়ে ছবিটির গল্প।

এখানে তাকে দেখানো হয়েছে বাংলাদেশ থেকে ভাগ্যের সন্ধানে মালয়েশিয়া যাওয়া এক যুবকের চরিত্রে। যে কখনও বাবুর্চি, কখনও আবার আকাশ ছোঁয়া দালানে চুনকাম করছেন। ঘটনাক্রমে সে দুর্ভাগ্যের শিকার হয়ে স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলে। শেষভাগে তার মৃত্যু হয়। তবে মৃত্যুর আগে চরিত্রটি একটি বার্তা দিয়ে যায় মালয়েশিয়ানদের। সেটি হলো-ঝগড়া নয়, মানুষের সাথে মিলেমিশে থাকো। মূলত, এসব কারণেই ছবিটি আলোর মুখ দেখার আগেই নিষিদ্ধ করা হয়।
বাংলাদেশেও তাদের ‘বাংলাশিয়া’ ছবিটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু সেটা হয়ে ওঠে নি। নিরব নিজেই আজ ছবিটির একটি ট্রেলার শেয়ার করেছেন নিজের ফেইসবুক ওয়ালে।

ছবিটির দৃশ্যধারণের কাজ হয়েছে মালেয়েশিয়ার পুচং, সেরামবান, কালাং, চায়না টাউন, পোর্টকালংসহ বিভিন্ন জায়গায়। মালোয়েশিয়ার চলচ্চিত্র নির্মাতা সংস্থা ‘প্রডিজি মিডিয়া এন্টারটেইনমেন্ট’ এর ব্যানারে ছবিটির দৃশ্যধারণ হয়।
সেসময় নিরব বলেছিলেন, মালোয়েশিয়ায় এ ছবিতে বিদেশী ক্রু ও শিল্পীদের সঙ্গে কাজ করে অনেক কিছু শিখেছি। প্রায়ই ভোর ৪টায় শুটিং এর জন্য কল থাকতো। আজও মনে আছে। ছবি নির্মাণের ব্যাপারে তারা বেশ যত্নবান। তাদের কাছ থেকে যা শেখেছি, তা অন্য ছবিতে কাজে লাগানোর চেষ্টা থাকবে। এদিকে চলচ্চিত্রটির প্রযোজনা সূত্র জানায়, চলচ্চিত্রটি বাংলা ভাষাসহ মোট ৬টি ভাষায় সাব টাইটেলে ডাবিং হয়েছে। ভাষাগুলো হলো মালে, চায়না, তামিল, থাই, ইংরেজি এবং বাংলা।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts