ফেসবুক, গুগল ও মাইক্রোসফটের সঙ্গে সরকারের সমঝোতা

Tarana halim pre active sim
Share Button

ইন্টারনেটে অনাকাঙ্ক্ষিত বিষয় রোধে ফেসবুক, গুগল ও মাইক্রোসফটের সঙ্গে সরকারের সমঝোতা হয়েছে। পাশাপাশি সরকারের অনুরোধে ইউটিউবে প্রকাশিত নীতিমালা পরিপন্থী ভিডিও প্রত্যাহারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে গুগল। যুক্তিগ্রাহ্য অনাকাঙ্ক্ষিত বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তারা এ বিষয়ে জবাব দেবে।

এছাড়া ফেক আইডি এবং দেশের বাইরে অবস্থানরত অ্যাডমিনের মাধ্যমে পরিচালিত ফেসবুক পেজ, ওয়েবসাইট, ব্লগ ইত্যাদির ওপর বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী এবং গোয়েন্দা সংস্থা নজরদারি করছে।

রোববার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরপর্বে আওয়ামী লীগের মহিলা আসনের এমপি বেগম ফজিলাতুন নেসা বাপ্পির প্রশ্নের জবাবে ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ফেসবুক তার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী, এই প্রথম সরকারের ৫৮টি অনুরোধের মধ্যে ২১টিতে সাড়া দিয়েছে। তারা ২০১৫ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সরকারের চাহিদা অনুযায়ী ১৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ তথ্য এবং চারটি কনটেন্ট ব্লক করেছে। সরকারের অনুরোধে নীতিমালা পরিপন্থী ভিডিও বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ইউটিউব। এছাড়া শিশু পর্ণোগ্রাফি রোধে এবং সাইবার নিরাপত্তায় মাইক্রোসফটের সঙ্গেও সরকার কাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, ইন্টারনেটের মাধ্যমে মিথ্যা, মানহানিকর, অপবাদমূলক, হয়রানিমূলক, বিদ্বেষপূর্ণ, জঙ্গিবাদী, ঘৃণামিশ্রিত, শিশুদের অপব্যবহার, অশ্লীল, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় মূল্যবোধের জন্য ক্ষতিকর বক্তব্য বা বিষয়বস্তু প্রচার ইত্যাদি রোধে এবং তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে সংঘটিত অপরাধ কমিয়ে আনার লক্ষ্যে সরকার নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছে।

রুস্তম আলী ফরাজীর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, বিটিআরসি থেকে বিডিসিএসআইআরটি নামে একটি টিম গঠন করা হয়েছে। যার মাধ্যমে ইন্টারনেটভিত্তিক অপরাধ দমনে সহায়তা করা হচ্ছে। ইন্টারনেট সেফটি সলিউশন (আইএসএস) সিস্টেম ক্রয় প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। এসব প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক অপরাধ কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।

তারানা হালিম জানান, এনটিএমসি এবং সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে আসা রাষ্ট্র, সমাজবিরোধী ও ধর্মবিরোধী কনটেন্ট আইআইজির মাধ্যমে বন্ধ করা হয়ে থাকে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts