বিয়ের আগেই নায়িকা কনীনিকার হানিমুন!

অভিনেত্রী কনীনিকা
Share Button

বিয়ে হয়নি এখনও, কিন্তু হানিমুন হয়ে গেছে। বিষয়টা শুনতে অবাক করার মত হলেও তাই হয়েছে।

শুধু তাই নয়, হবু বর-কনের প্রি-হানিমুনে সঙ্গী ছিল বরের ছেলেও।

অভিনেত্রী কনীনিকা ও প্রযোজক সরজিত হরির বিয়ের আগেই প্যারিস, রোম, মাদ্রিদ, বার্সোলোনা ঘুরে এসেছেন। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পত্রিকাটিকে কনীনিকা বলেছেন, নিজের, নিজের সাবেক বয়ফ্রেন্ড ও বরের আগের পক্ষের ছেলেসহ পরিবারের সদস্যদের মনোভাবের কথা।

এক সময়ের বহু সম্পর্কের গল্প কনীনিকা আগামী ৯ ডিসেম্বর মালাবদল করবেন প্রযোজক সুরজিত্ হরির সঙ্গে।

এ বিষয়ে কনীনিকা বলেন, ‘আমি জয়েন্ট ফ্যামিলির মেয়ে। আর সুরজিতের বাড়িও তাই। আমার ওর প্রতি অ্যাট্রাকশনটাও সেখান থেকেই। প্রথম দিন যখন ডেটে যাই আমার মনে আছে, প্রথম ওর বাবা ফোন করল, তার পর মা। এই ফোন কিন্তু আমারও আসে।’

তিনি জানান, আমরা যারা ডিসিপ্লিনের মধ্যে বড় হয়েছি তাদের কাছে এটা খুব ইমপর্ট্যান্ট। যে কেউ একজন জানতে চাইবে, তুই বাড়ি ফিরে খাবি তো? বা কোথায় তুই, কখন ফিরবি? সেটা ভাল লেগেছিল। মনে হয়েছিল এই মানুষটা এখনও বাবা-মায়ের ছত্রছায়ায় আছে। তাদের ছেড়ে বেরোয়নি।

হবু বর নিয়ে কনীনিকা বলেন, ‘ষড়রিপু’র ডাবিংয়ের আগে আমরা সকলে একসঙ্গে একবার রায়চকে গিয়েছিলাম। তখন তো সুরজিত্দা বলতাম। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি উনি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তখন আমিই ডেকেছিলাম। তারপর ভ্যানে চড়ে গঙ্গাকুটিরে গিয়েছিলাম। ওখানে দু’ঘণ্টা বকবক করেছিলাম। তার পরের দিনই ও আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। ওখান থেকে ফিরে আমি একাই ইউরোপ ট্যুরে গিয়েছিলাম। তখন রোজ এক ঘণ্টা করে ফোন করত। খুব কেয়ারিং। তখন দেখলাম এই মানুষটার মধ্যে সেই সব কোয়ালিটি আছে যা একজন হাজব্যান্ডের মধ্যে থাকা উচিত।

হবু বরের ছেলে নিয়ে কনীনিকার বক্তব্য, ‘ও জীবনটা একটু আগে শুরু করেছে। তাই ওর ছেলে দ্রোণ আছে। তবে বরের ছেলের সঙ্গে এডজাস্টমেন্টে প্রথমে সমস্যা হলেও এখন হচ্ছে না। ওর (বরের ছেলে) সিক্রেট বিষগুলোও আমার সঙ্গে শেয়ার করে। প্রথমে মাসি বলে ডাকত। আমি বলেছিলাম কোনি বল। তারপর বড়রা রে রে করে উঠল। এখন মা বলে ডাকে। আমি হয়তো সাড়া দিতে ভুলে যাই। অভ্যেস নেই তো।’

তবে হবু বরের ছেলেকে নিয়ে প্রি-ম্যারেজ হনিমুনে গেলেও পোস্ট ম্যারেজ হনিমুনে যাবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন কনীনিকা। তার মতে, সেটা একটু বাড়াবাড়ি হয়ে যাবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts