মাইকেল জ্যাকসনের বাড়িতে কিশোরদের নগ্ন ছবি

Michael Jackson
Share Button

মাইকেল জ্যাকসনের শোওয়ার ঘর এবং শৌচালয়ের দেওয়ালে কিশোরদের নগ্ন এবং অর্ধনগ্ন ছবির সারি। বাড়ির বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়েছিটিয়ে রাখা একাধিক পর্ন পত্রিকা এবং পর্ন ভিডিও। এমনকী, পশু নির্যাতনের ছবিও। ২০০৩ সালে জ্যাকসনের ক্যালিফোর্নিয়ার খামারবাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে এসবেরই সন্ধান পেয়েছিল পুলিশ।

পপ সম্রাট শিশুদের উপরে নির্যাতন চালাচ্ছেন, এমন অভিযোগ পেয়ে নেভারল্যান্ড খামারবাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছিল পুলিশবাহিনী। ২০০৩ সালের নভেম্বরে। সেইসময় লাস ভেগাসে গিয়েছিলেন জ্যাকসন। সেই তল্লাশির রিপোর্ট এবং আদালতে জমা দেওয়া বিভিন্ন কাগজপত্র সম্প্রতি পেয়েছেন সাংবাদিকেরা। সেই রিপোর্টে পুলিশের দাবি, যৌন-উত্তেজক ছবি দেখিয়ে কিশোরদের উপরে যৌন নিগ্রহ চালাতেন জ্যাকসন! এক তদন্তকারীর কথায়, ‘‘মাদক খাইয়ে, উত্তেজক ছবি দেখিয়েই ছোট ছোট ছেলেদের সহবাসে বাধ্য করতেন জ্যাকসন।’’

এমনকী, এজন্য জ্যাকসন নিজের ভাইপোর নগ্ন ছবিও ব্যবহার করতেন বলে দাবি পুলিশের।
অকালপ্রয়াত জ্যাকসনের বাড়িতে পাওয়া বিভিন্ন জিনিসের একটি তালিকা রয়েছে ওই রিপোর্টে। সেখানেই ওই তদন্তকারীর মন্তব্য— ‘‘আমার মতে, এইসমস্ত জিনিস দেখিয়ে কিশোরদের মানসিক এবং শারীরিকভাবে তৈরি করা হতো। যাতে তারা লজ্জা ত্যাগ করে জ্যাকসনের কথামতো কাজ করে।’’ শিশু নিগ্রহ মামলায় আদালতে জ্যাকসনকে জেরা করেছিলেন সান্টা বারবারার আইনজীবী রন জোনেন। তাঁর কথায়, ‘‘কিশোরদের সংকোচ কাটাতে বিভিন্ন ছবি দেখানো হতো। আদালতে জ্যাকসন নিজেই কবুল করেছিলেন যে, তিনি একাধিক কিশোরকে শয্যাসঙ্গী করেছিলেন!’’

জ্যাকসনের বিরুদ্ধে একাধিকবার শিশুদের যৌন নিগ্রহের অভিযোগ উঠলেও কখনওই তা প্রমাণিত হয়নি। ২০০৫ সালে তারকার বিরুদ্ধে মুখ খোলে ১৩ বছরের গেভিন আরভিজো। ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইয়ে জয়ী নাবালকটি জানিয়েছিল, কীভাবে দিনের পর দিন তার উপরে নির্যাতন চালিয়েছিলেন ‘মুন ডান্সে’র জনক। জর্ডান শ্যান্ডলার নামে আরেক কিশোর জ্যাকসনের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ আনলেও তা ধোপে টেকেনি।

যৌন নিগ্রহের অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রায় ২০ বছরের জন্য জেলের ঘানি টানতে হতো জ্যাকসনকে। তবে তা হয়নি। ২০ জন অভিযোগকারীর পরিবারকে বিশাল অঙ্কের অর্থ ‘ঘুষ’ দিয়ে মামলা প্রত্যাহার করান তিনি।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts